গৌতম মণ্ডল, কাকদ্বীপ: পাড়ায় পাড়ায় ছোটদের জামাকাপড় ফেরি করেন আলমগির শেখ। টানা লকডাউনের জেরে সব গ্রামে এখন ঢোকাও যায় না। এই অবস্থার মধ্যেও রাস্তায় কুড়িয়ে পাওয়া মানিব্যাগ ফিরিয়ে দিয়ে সততার নজির গড়লেন বছর সাঁইত্রিশের আলমগির। মানিব্যাগে ছিল ৮ হাজার টাকা ও প্যানকার্ড, ভোটার কার্ডের মতো জরুরি নথি। হারিয়ে যাওয়া মানিব্যাগ টাকা সমেত ফিরে পেয়ে আপ্লুত পঞ্চানন শাসমল। 
আলমগির আদতে মুর্শিদাবাদের লালগোলার বাসিন্দা। প্রায় বছর দশেক আগে কাকদ্বীপে চলে আসেন। একটি সাইকেলে ছোটদের পোশাক সাজিয়ে গ্রামে গ্রামে ফেরি করেন। কাকদ্বীপ অনুকূল আশ্রমের পাশে একটি বাড়িতে ভাড়া থাকেন। গত রবিবার কাকদ্বীপের ১৩ নম্বর ঘটিহারানিয়াতে গিয়েছিলেন ফেরি করতে। গ্রাম ঘুরে ফেরার পথে রাস্তায় একটি মানিব্যাগ দেখতে পেয়ে কুড়িয়ে নেন তিনি। পুরো বিষয়টি জানান বাড়িওয়ালা অমর্ত্য রায়কে। তিনি নামখানা বিডিও অফিসের কর্মী। তিনি সব দেখার পর কাকদ্বীপের বিডিও অফিসের কর্মীদের সঙ্গে যোগাযোগ করেন। ছবি তুলে পাঠান সমস্ত জরুরি নথিপত্রের। এরপর খোঁজখবর নিয়ে স্থানীয় বাপুজি পঞ্চায়েতের বাসিন্দা বছর পঞ্চান্নর পঞ্চাননকে আলমগিরের সঙ্গে যোগাযোগ করতে বলা হয়। শুক্রবার মানিব্যাগ ফিরে পেয়ে আপ্লুত পঞ্চাননবাবু। তিনি বলেন, ‘‌আমি আশা ছেড়ে দিয়েছিলাম। অভাবের মাঝেও সততা মুগ্ধ করেছে। ধন্যবাদ দিয়ে ছোট করতে চাই না।’‌ আলমগিরও মানিব্যাগ ফেরত দিতে পেরে খুব খুশি।‌

জনপ্রিয়

Back To Top