আজকালের প্রতিবেদন: কলকাতায় বিজেপি কর্মীদের বিদ্যাসাগরের মূর্তি ভাঙার প্রতিবাদে গর্জে উঠল দক্ষিণবঙ্গ। ওই ঘটনার প্রতিবাদে বুধবার জেলায় জেলায় বিক্ষোভ ও ধিক্কার মিছিল হয়। সাধারণ মানুষের পাশাপাশি বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের পক্ষ থেকেও বিক্ষোভ দেখানো হয়। গলায় প্ল্যাকার্ড ঝুলিয়ে, কোথাও আবার গানে, কবিতায় ও বক্তব্য পেশের মাধ্যমে বিদ্যাসাগরের মূর্তি ভাঙার তীব্র প্রতিবাদ জানানো হয়। 
পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার সব ব্লকেই এদিন ধিক্কার ও প্রতিবাদ মিছিল হয়। তৃণমূলের পক্ষ থেকে মেদিনীপুর কলেজের সামনে থাকা বিদ্যাসাগরের মূর্তিতে মালা দিয়ে অবস্থান বিক্ষোভ শুরু হয়। সেখানে উপস্থিত ছিলেন তৃণমূলের নেতা ও কর্মীরা। জেলার তৃণমূল সভাপতি অজিত মাইতি, লোকসভার প্রার্থী মানস ভুঁইয়া উপস্থিত ছিলেন। সকলেই বিজেপি–র এই তাণ্ডবের ধিক্কার জানান। এদিন বিকেলে প্রতিবাদ মিছিল হয় বহরমপুরে। সাংস্কৃতিক কর্মী, বুদ্ধিজীবীরা মিছিলে অংশ নেন। শহরের রবীন্দ্র সদনের পাশে থাকা বিদ্যাসাগর মূর্তির পাদদেশ থেকে মিছিল শুরু হয়। সকলের হাতে ছিল বিদ্যাসাগরের ছবি। পথ চলতি মানুষও মিছিলে পা মেলান। মিছিল শেষ হয় রবীন্দ্র সদনের সামনে।
বিদ্যাসাগরের মূর্তি ভাঙায় সরব পূর্ব মেদিনীপুরও। এদিন দফায় দফায় কঁাথি, তমলুক, এগরা, হলদিয়ার সর্বত্র রাজনৈতিক, অরাজনৈতিকভাবে পথে নামেন সর্বস্তরের মানুষ। মূর্তি ভাঙার প্রতিবাদে এসইউসি–র তরফে পূর্ব মেদিনীপুরের বিভিন্ন জায়গায় প্রতিবাদ কর্মসূচি পালন করা হয়। পঁাশকুড়া, কোলাঘাট, ভোগপুর, মেচেদা, তমলুক ও নোনাকুড়ি এলাকায় বিদ্যাসাগরের আবক্ষ মূর্তিতে মাল্যদানের পাশাপাশি পথসভা করে ধিক্কার জানানো হয়। বামফ্রন্টের তরফে এদিন বিকেলে তমলুকের নিমতৌড়িতে ধিক্কার মিছিল হয়।‌
বঁাকুড়াতেও ধিক্কার মিছিল করে তৃণমূল শিক্ষক সংগঠন। মাচানতলা থেকে এই ধিক্কার মিছিল শুরু হয়। শেষ হয় মাচানতলাতেই। ৬০ নম্বর জাতীয় সড়ক আধঘণ্টার জন্য অবরোধ করা হয়। বড়জোড়া এবং বেলিয়াতোড়েও ধিক্কার মিছিল হয়। বেলিয়াতোড়ে মিছিলের নেতৃত্ব দেন বিধায়ক সুজিত চক্রবর্তী। কালনা–কাটোয়া দুই মহকুমাতেও রাস্তায় নেমে প্রতিবাদ হয়। কোথাও আবার বিজেপি–র সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহর কুশপুতুল পোড়ানো হয়। কাটোয়া ও কালনার বিভিন্ন জায়গায় প্রতিবাদ কর্মসূচি সংগঠিত করে মূলত তৃণমূল ছাত্র পরিষদ। নাদনঘাটের শ্রীরামপুরে বিদ্যাসাগরের মূর্তি ভাঙার প্রতিবাদ মিছিলে অংশ নেন মন্ত্রী স্বপন দেবনাথ। 
এদিন পুরুলিয়ার বিভিন্ন জায়গায় মিছিল হয়। তৃণমূলের পক্ষ থেকে ধিক্কার মিছিল হয় ভিক্টোরিয়া স্কুল মোড় থেকে। মিছিলে তৃণমূলের নেতা কর্মীরা–সহ সর্বস্তরের মানুষ যোগ দেন। মিছিল শেষে ট্যাক্সি স্ট্যান্ডে একটি সভা হয়। আদ্রার আবৃত্তি পরিষদের পক্ষ থেকে মূর্তি ভাঙার 

জনপ্রিয়

Back To Top