SNU Kolkata League: কলকাতা লিগের জন্য আইএফএর সঙ্গে গাঁটছড়া সিস্টার নিবেদিতা ইউনিভার্সিটির

আজকাল ওয়েবডেস্ক: বাংলার ফুটবলের উন্নতিতে আবার এগিয়ে এলেন সত্যম রায়চৌধুরী। স্পনসরের অভাবে ঘরোয়া লিগের সুপার সিক্স পর্ব যখন বিশ বাঁও জলে, ঠিক তখনই পরিত্রতার ভূমিকায় সিস্টার নিবেদিতা ইউনিভার্সিটি (এসএনইউ)। কলকাতা লিগের জন্য আইএফএর সঙ্গে গাঁটছড়া বাঁধল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। এসএনইউ কলকাতা লিগ নামে সুপার সিক্স পর্বের মাচগুলো হবে। বুধবার শহরের একটি পাঁচতারা হোটেলে আইএফএর সঙ্গে সিস্টার নিবেদিতা ইউনিভার্সিটির মউ স্বাক্ষরিত হয়। উপস্থিত ছিলেন সিস্টার নিবেদিতা ইউনিভার্সিটির আচার্য এবং টেকনো ইন্ডিয়া গ্রুপের ম্যানেজিং ডিরেক্টর সত্যম রায়চৌধুরী, উপাচার্য ধ্রুবজ্যোতি চট্টোপাধ্যায়, আইএফএ সভাপতি অজিত ব্যানার্জি, চেয়ারম্যান সুব্রত দত্ত, সচিব অনির্বাণ দত্ত এবং সহ সচিব সুফল রঞ্জন গিরি। এছাড়াও ছিলেন বিওএর সভাপতি স্বপন ব্যানার্জি এবং ইস্টবেঙ্গল কর্তা বাবু চক্রবর্তী। হাজির ছিলেন এসএনইউ এবং টেকনো ইন্ডিয়ার আধিকারিকরাও। প্রত্যেক ম্যাচের সেরা এবং ইমার্জিং ফুটবলারের পুরস্কার দেবে এসএনইউ। এছাড়াও সবরকম মেডিক্যাল সহযোগিতা করবে টেকনো গ্লোবাল হাসপাতাল। আপাতত শুধু কলকাতা লিগের জন্যই চুক্তি হয়েছে। কিন্তু পরবর্তীকালে বাংলার ফুটবল নিয়ামক সংস্থার সঙ্গে দীর্ঘমেয়াদি চুক্তিতে যেতে পারে সিস্টার নিবেদিতা ইউনিভার্সিটি। 

আগের বছর আইএফএর সঙ্গে প্রথমবার গাঁটছড়া বাঁধে সিস্টার নিবেদিতা ইউনিভার্সিটি। এক বছরের চুক্তি হয়েছিল।

এবার দ্বিতীয় বছরের জন্য পথচলা শুরু হল। সত্যম রায়চৌধুরী বলেন, 'টেকনো ইন্ডিয়া গ্রুপ এবং সিস্টার নিবেদিতা ইউনিভার্সিটি আইএফএর সঙ্গে দ্বিতীয় বছরের জন্য পথচলা শুরু করল। আমরা গতবছরও আইএফএর সঙ্গে ছিলাম, এবছরও আছি। এটা এসএনইউ এবং টেকনো ইন্ডিয়া গ্রুপের ছাত্রছাত্রীদের জন্য বিশেষ ব্যাপার। ফুটবলপ্রেমী স্টুডেন্টদের ভাল লাগার বিষয়। বাংলার ফুটবলের জন্য এইটুক করতে পেরে ভাল লাগছে। আমরা খেলার সঙ্গে থাকতে চাই। ২৩ জানুয়ারি মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি আমাকে স্পোর্টস ইউনিভার্সিটি করার কথা বলেন। আশা করছি ২০২৪ সালে সেটা চালু হয়ে যাবে। জেলার ছেলেমেয়েরা ক্রীড়া বিশ্ববিদ্যালয় থেকে সবরকম সাহায্য পাবেন। এই ইউনিভার্সিটি সম্বন্ধে ধারণা নেওয়ার জন্য আমি বিদেশে গিয়েছি। কীভাবে ট্রেনিং হয় দেখেছি। বিদেশে কয়েকটা ইউনিভার্সিটির সঙ্গে কথা হয়েছে। ওদের সঙ্গেও গাঁটছড়া বেঁধে এগোব।' ফুটবলের সঙ্গে নিবিড় সম্পর্ক রয়েছে সত্যম রায়চৌধুরীর। এর আগে প্রায় দশ বছর ধরে এরিয়ান ক্লাবের স্পনসর ছিল টেকনো ইন্ডিয়া। ফুটবলের প্রতি ভালবাসার কথা প্রসঙ্গে নিজের ছোটবেলার কথা তুলে ধরেন সিস্টার নিবেদিতা ইউনিভার্সিটির প্রধান। সত্যম রায়চৌধুরী বলেন, 'ছোটবেলায় বাতাবি লেবু আমাদের ফুটবল ছিল। গাছ থেকে বাতাবি লেবু পেড়ে আমরা খেলতাম। পরে অনেকজন বন্ধু মিলে একটা ফুটবল কিনেছিলাম। তখন বাড়িতে টিভি ছিল না, সারা পাড়ায় একটা টিভি ছিল। সেখানে বাংলার ফুটবলারদের খেলা দেখতাম।

এডুকেশনের সঙ্গে খেলার একটা যোগ আছে। সেটা অনুভব করেই আমরা প্রায় দশ বছর এরিয়ানের সঙ্গে ছিলাম। পরবর্তীকালে স্পোর্টস ইউনিভার্সিটি থেকে ক্রীড়াবিদ তুলে আনাই আমাদের লক্ষ্য।' 

সিস্টার নিবেদিতা ইউনিভার্সিটির প্রধানকে আইএফএর পেট্রন করার প্রস্তাব দেন চেয়ারম্যান সুব্রত দত্ত। ভবিষ্যতে রাজ্যের ফুটবল নিয়ামক সংস্থার পদেও দেখার ইচ্ছাপ্রকাশ করেন। সুব্রত দত্ত বলেন, 'দু'বছর ধরে এসএনইউ আইএফএ এবং কলকাতা ফুটবল লিগের সঙ্গে জড়িত। ক্রীড়া জ্ঞানের প্রয়োগ শেখায়। তাতে মানুষ সাফল্য পায়। বঙ্গ জীবনের অঙ্গ ফুটবল। সত্যম রায়চৌধুরীকে আইএফএর পেট্রন করার প্রস্তাব রাখব। ভবিষ্যতে আইএফএতে আসতে চাইলে স্বাগত জানাব। ওনার মতো প্রশাসক বাংলার ফুটবলের দরকার।' আইএফএ চেয়ারম্যানের সঙ্গে সুর মেলান সভাপতি অজিত ব্যানার্জি এবং সচিব অনির্বাণ দত্ত। আইএফএ সভাপতি বলেন, 'পায়ে পা মিলিয়ে চলার অঙ্গীকার দিয়েছেন সত্যম রায়চৌধুরী।' অনির্বাণ দত্ত বলেন, 'তাঁর নেতৃত্বে এত কম সময়ের মধ্যে সিস্টার নিবেদিতা ইউনিভার্সিটি এই জায়গায় পৌঁছেছে। আইএফএর মঙ্গল হবে ওনাকে পেলে।' আজ রাতের মধ্যে কলকাতা লিগের সুপার সিক্সের ফিক্সচার চূড়ান্ত করে ছ'টি ক্লাবকে পাঠিয়ে দেওয়া হবে। পুজোর আগে কলকাতায় খেলার অনুমতি পাওয়া যাচ্ছে না। তাই রবি এবং সোমবার নৈহাটিতে ইস্টবেঙ্গল এবং মহমেডানের দুটো ম্যাচ করতে চাইছে আইএফএ। কলকাতা লিগের সুপার সিক্সের ম্যাচের লাইভ স্ট্রিমিং হবে aajkaal.in এ। 

ছবি: অভিষেক চক্রবর্তী 

আকর্ষণীয় খবর