আজকাল ওয়েবডেস্ক: মঙ্গলবার‌ সাতসকালে দুষ্কৃতীদের ছোঁড়া গুলিতে খুন হলেন তৃণমূলের প্রাক্তন অঞ্চল সভাপতি। ঘটনাটি ঘটেছে হাওড়ার বাগনানে। নিহত ওই ব্যক্তির নাম শেখ আসাদুল রহমান। এই ঘটনায় রীতিমতো চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়েছে। 
পরিবার সূত্রে খবর, সকালে তাঁর মোবাইলে একটি ফোন আসে। ফোন আসার পর বাড়ি থেকে সাইকেল নিয়ে বেরিয়ে যান। কিছুক্ষণ পর সকাল সাড়ে ৬'টা নাগাদ তাঁর মৃত্যুর খবর যায় বাড়িতে। পরিবাবের সদস্যেরা ঘটনাস্থলে গিয়ে দেখেন রক্তাক্ত অবস্থায় গুলিবিদ্ধ হয়ে পড়ে আছেন তিনি। পয়েন্ট ব্ল্যাঙ্ক রেঞ্জ থেকে তাঁর মাথায় গুলিটি করা হয়েছে বলে খবর।
এই ঘটনার পর এলাকাবাসী দেহ আটকে বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করেন। ঘটনাস্থলে পৌঁছয় পুলিশ। বাসিন্দাদের অভিযোগ, এই মুহূর্তে পুলিশ কুকুর নিয়ে দুষ্কৃতীদের তল্লাশি করতে হবে। তবেই তাঁরা দেহ ময়নাতদন্তের জন্য পুলিশের হাতে দেবেন। এলাকায় চাপা উত্তেজনা থাকায় মোতায়েন করা হয়েছে বিশাল পুলিশ বাহিনী। পুলিশ বাসিন্দাদের বুঝিয়ে দেহ তোলে। মৃতদেহ ময়নাতদন্তের জন্য পাঠানো হয়েছে বাগনান থানায়।
প্রশ্ন উঠছে, কেন শেখ আসাদুল রহমানকে গুলি করা হল? পরিবারের অভিযোগ, এই ঘটনার পেছনে রাজনৈতিক কারণ রয়েছে। যার জেরে এই ঘটনা ঘটেছে। স্পষ্ট করে কারো বিরুদ্ধে অভিযোগ জানানো হয়নি। বাগনানের শ্যুটআউটের এই ঘটনার পেছনের কারণ জানতে তদন্তে নেমেছে পুলিশ। উল্লেখ্য, গত মঙ্গলবার দিনে–দুপুরে দুষ্কৃতীদের ধারালো অস্ত্রের কোপে খুন হয়েছিলেন নদিয়ার শান্তিপুরের এক তৃণমূল সমর্থক। নিহত যুবকের নাম শান্তনু মাহাত ‌ওরফে গনা (৩২)। নিহত শান্তনু তৃণমূল কর্মী ছিলেন।

ছবি:‌ সুপ্রতিম মজুমদার 

জনপ্রিয়

Back To Top