Sheoraphuli: ‌‘‌সহবাসের’‌ পর প্রেমিকাকে ফাঁকি দিয়ে অন্যত্র বিয়ে করতে গিয়েই ধৃত প্রেমিক  

আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ এক দু’‌বছর নয়।

দীর্ঘ ২২ বছরের প্রেম ছিল দু’‌জনের। বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে ‘‌সহবাস’‌ও হয়েছে। সেই প্রেমিকাকেই ফাঁকি দিয়ে অন্য পাত্রীকে বিয়ে করতে যাচ্ছিল ‘‌প্রেমিক’‌। কিন্তু শেষরক্ষা হল না। পুলিশের জালে হবু বর। ‘‌প্রেমিক’‌ বিয়ে করতে যাচ্ছে জানতে পেরেই পুলিশে অভিযোগ করেন প্রেমিকা। ঘটনাটি ঘটেছে হুগলির শেওড়াফুলিতে। 
শেওড়াফুলির রাজাবাগান এলাকার বাসিন্দা ধৃত প্রেমিক শৌভিক চ্যাটার্জি। বছর ৪৭–এর শৌভিক চ্যাটার্জির সঙ্গে বিগত ২২ বছর ধরে শেওড়াফুলিরই ঘোষপাড়ার এক মহিলার ‘‌ঘনিষ্ঠ’‌ সম্পর্ক ছিল। বছর ৪০–এর ওই প্রেমিকার অভিযোগ, বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে তাঁর সঙ্গে একাধিকবার সহবাস করেছে অভিযুক্ত প্রেমিক। প্রেমিকার দিদির অভিযোগ, দু’‌জনে তারাপীঠেও গিয়েছিলেন। এমনকি সেখানে প্রেমিকাকে সিঁদুরও পরিয়ে দিয়েছিল ধৃত শৌভিক চ্যাটার্জি। সেই ছবিও নাকি রয়েছে। কিন্তু ইদানিং বিয়ের কথা বললেই টালবাহানা করত শৌভিক। পণের দাবিও নাকি করত। এই অবস্থার মধ্যেই জানা যায়, প্রেমিক শৌভিকের অন্যত্র বিয়ে ঠিক হয়েছে। উত্তর ২৪ পরগনার সোদপুরে পাত্রীর বাড়ি। কিন্তু বিয়ের দিনক্ষণ জানতে পারছিলেন না প্রেমিকা। শেষে রবিবার গায়ে হলুদের তত্ত্ব আসতে দেখেই সন্দেহ হয় তাঁর। তখনই শেওড়াফুলি পুলিশ ফাঁড়িতে গিয়ে অভিযোগ জানান। সেখান থেকে তাঁকে শ্রীরামপুর মহিলা থানায় পাঠানো হয়। সেখানেই প্রেমিক শৌভিক চ্যাটার্জির বিরুদ্ধে বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে সহবাস ও বিশ্বাসভঙ্গের অভিযোগ দায়ের করেন প্রেমিকা। অভিযোগের ভিত্তিতে পুলিশ শেওড়াফুলির রাজাবাগানে পৌঁছে দেখে যে, সোদপুর থেকে পাত্রীপক্ষ বর নিতে হাজির হয়েছে। সেখান থেকেই ফুল দিয়ে সাজানো গাড়ি সমেত হবু বরকে থানায় ধরে নিয়ে আসে পুলিশ। অভিযুক্ত প্রেমিকের বিরুদ্ধে ধর্ষণের মামলা রুজু হয়েছে। যদিও ধৃতের পরিবার এই অভিযোগ মিথ্যে বলেই দাবি করেছে। ষড়যন্ত্রের অভিযোগ তুলেছে ধৃতের পরিবার। 

আরও পড়ুন:‌ একই ওয়ার্ডে দুই দলের হয়ে দাঁড়িয়ে পড়লেন একই নাম, পদবি ওয়ালা ব্যক্তি
 


 

আকর্ষণীয় খবর