School Vandalism: চুরি করতে এসে কিছু না পেয়ে স্কুলে ভাঙচুর করল দুষ্কৃতীরা

আজকাল ওয়েবডেস্ক: স্কুলে চুরি করতে এসে কিছু না পেয়ে তাণ্ডব চালাল দুষ্কৃতীরা।

ঘটনাটি ঘটেছে হাওড়ার ডোমজুড় থানা এলাকার উত্ত‌র–মৌড়ী কেশবচন্দ্র নিম্ন বুনিয়াদি স্কুলে। গত শনিবার স্কুলে এসে শিক্ষকরা দেখেন, ভেঙে দেওয়া হয়েছে পড়ুয়াদের জলপানের কল, শৌচাগারের কল, কেটে দেওয়া হয়েছে স্কুলের ইলেকট্রনিক লাইন, ভাঙা হয়েছে বাল্ব ও সুইচ বোর্ড। নষ্ট করে দেওয়া হয়েছে মিড ডে মিলের সমস্ত মশলা। ঘটনায় শিক্ষকদের সঙ্গে ক্ষুব্ধ পড়ুয়াদের অভিভাবকরাও। অভিযোগ, বারবার স্কুলে চুরি হলেও পুলিশ চোর ধরতে পারছে না। প্রতিবাদে স্কুলের সামনের রাস্তায় বিক্ষোভ দেখান তাঁরা। বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের অভিযোগ, একের পর এক চুরি এবং স্কুলের সম্পত্তি নষ্টের ঘটনায় তাদের বিদ্যালয় চালাতে রীতিমতো অসুবিধা হচ্ছে। ঘটনাস্থলে আসে ডোমজুড় থানার পুলিশ। তারা প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের আশ্বাস দিলে বিক্ষোভকারীরা শান্ত হন। 
স্কুলের প্রধান শিক্ষিকা মালতি রায় অভিযোগ করেন, গত ২০১২ থেকেই স্কুলে বারবার চুরির ঘটনা ঘটছে। গত ১১ এপ্রিল বিদ্যালয়ের তালা ভেঙে ও জানালার রড ভেঙে দুষ্কৃতীরা স্কুলের ঘরে ঢুকে বই, খাতা চুরি করে নিয়ে যায়। প্রত্যেকবার ডোমজুড় থানার কাছে অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। মাঝে কিছুদিন পুলিশি পাহারার ব্যবস্থা হওয়ায় চুরি বন্ধ ছিল। পাহারা তুলে নেওয়ায় ফের চুরি শুরু হয়েছে। 
কার্যত রীতিমতো অসন্তোষ প্রকাশ করেই স্কুল কর্তৃপক্ষের দাবি, এইভাবে চললে স্কুল চালাতে অসুবিধার সম্মুখীন হতে হচ্ছে তাঁদের। গোটা ঘটনায় যথেষ্টই অস্বস্তিতে স্থানীয় পুলিশ। চোর ধরে ঘটনার সুরাহা করতে খোঁজখবর নেওয়া শুরু হয়েছে বলে জানিয়েছেন ডোমজুড় থানার এক পুলিশকর্তা।

আরও পড়ুন:‌ ব্যারাকপুর সামলানোর দায়িত্ব পড়ল শুভেন্দুর কাঁধেই 
 


 

আকর্ষণীয় খবর