আজকালের প্রতিবেদন: সরস্বতী পুজো নিয়ে ব্যাপক উন্মাদনা দেখা গেল দক্ষিণবঙ্গের জেলাগুলিতে। পুরুলিয়া, মুর্শিদাবাদ, বীরভূম, মেদিনীপুর, গোঘাট থেকে প্রায় সব জেলাতেই সমারোহে সরস্বতী পুজো হয়েছে। কোথাও আয়োজক স্থানীয় ক্লাব, কোথাও বা স্কুল–কলেজ। শনিবার থেকেই পুজো নিয়ে উন্মাদনা শুরু হয়। যা অব্যাহত ছিল রবিবারেও। 
পুরুলিয়ার নিস্তারিণী মহিলা মহাবিদ্যালয়ে সরস্বতী পুজোয় থাকে না কোনও পুরোহিত। এখানে পুজো করেন কলেজের ছাত্রীরাই। দীর্ঘ কয়েক বছর ধরেই এই রীতি চলে আসছে কলেজে। পুজোর আগে টানা কয়েকদিন ধরে পুরোহিতের প্রশিক্ষণ নিয়ে পুজো করে আসছে কলেজের বিভিন্ন বর্ষের ছাত্রীরা। তবে প্রতি বছর পুজোয় থাকেন নতুন পুরোহিত। কলেজ সূত্রে জানা গিয়েছে, ২০০৬ সাল থেকেই কলেজে ছাত্রীরা পুজো করে আসছেন। মহিলা পুরোহিত পায়েল মিশ্র বলেন, ‘‌এখন মেয়েরা কোনও বিষয়েই পিছিয়ে নেই। সমাজকে বার্তা দিতেই আমরা পুজো করে আসছি। এর আগে আমাদের দিদিরা পুজো করেছে।’‌ কলেজের অধ্যক্ষ ইন্দ্রাণী দেব বলেন, ‘‌আমাদের কলেজে দীর্ঘদিন ধরেই মেয়েরা পুজো করছে।’‌
পুজোয় উন্মাদনা ছিল নদিয়াও। কৃষ্ণনগর হাই স্কুলের সরস্বতী পুজোর থিম আন্দামানের সেন্টিনেলিজ উপজাতির জীবনযাত্রা এবার সাড়া জাগিয়েছে। বহু মানুষ এই থিম দেখতে যাচ্ছেন। সম্প্রতি এক আমেরিকান মিশনারি জন অ্যালেন সেন্টিনেলিজদের দ্বীপে নিহত হন। তাই এই থিম খুবই প্রাসঙ্গিক বলে অনেকেই মনে করছেন। কৃষ্ণনগর হাইস্কুলের মণ্ডপ চত্বরে নানা মাটির মডেলের সাহায্যে এই জীবনযাত্রা ফুটিয়ে তোলা হয়েছে। অন্যদিকে, কৃষ্ণনগর এ ভি হাইস্কুল তাদের মণ্ডপ চত্বরে তৈরি করেছে চারটি অত্যাশ্চর্য জিনিস। লণ্ডনের বিগবেন, প্যারিসের আইফেল টাওয়ার, পিসার হেলানো মিনার এবং দিল্লির কুতুবমিনার তৈরি করা হয়েছে বঁাশ, থার্মোকল ইত্যাদি দিয়ে। কৃষ্ণনগর কলেজিয়েট স্কুলের এবারের থিম মা ও শিশু।
দুঃস্থদের পাশে দঁাড়াল বীরভূম জার্নালিস্ট ওয়েলফেয়ার অ্যাসোসিয়েশন। তাদের উদ্যোগের প্রশংসা করলেন কৃষিমন্ত্রীও। অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন কৃষিমন্ত্রী আশিস ব্যানার্জি। অ্যাসোসিয়েশনের অফিসে সরস্বতী পুজো উপলক্ষে বিভিন্ন সামাজিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। দুপুরে প্রসাদ বিতরণের পর শীতবস্ত্র বিতরণ করা হয়। ছিলেন কৃষিমন্ত্রীর পাশাপাশি ভাইস চেয়ারম্যান সুকান্ত সরকার, মহকুমা শাসক নাভেদ আখতার, তথ্য ও সংস্কৃতি দপ্তরের রাজ্য সহ তথ্য অধিকর্তা মানসকুমার দাস, রামপুরহাট পুরসভার প্রাক্তন ভাইস চেয়ারম্যান, তৃণমূলের রামপুরহাট শহর সাধারণ সম্পাদক আবদুর রেকিব, শুভাশিস চৌধুরী ও শাহাজাদা কিনু।
হুগলির কামারপুকুর নয়নতারা বালিকা বিদ্যালয়ের পুজোয় ছাত্রীরা মুখ্যমন্ত্রীর ‘‌কন্যাশ্রী’‌ প্রকল্পকে প্রচারে এনেছে। ডালিয়া নিয়োগী, অনন্যা কোলে, রিমি দাস, আদৃতা মণ্ডল প্রমুখ দশম শ্রেণির ছাত্রীরা বলল, ‘‌মুখ্যমন্ত্রী ছাত্রীদের স্বনির্ভরতার কথা ভেবেই এই প্রকল্প চালু করেছে। ১৮ বছর বয়সের আগে যাতে কোনও ছাত্রী বিয়ের পিঁড়িতে না বসে, তা নিয়ে আমরা সকলের কাছে বার্তা পৌঁছে দিচ্ছি।’‌
তথ্যসূত্র:‌ দীপেন গুপ্ত, অমিতকুমার ঘোষ, 
আরিফউদ্দিন আহমেদ, বুদ্ধদেব দাস ও তুফান মণ্ডল

জনপ্রিয়

Back To Top