গৌতম চক্রবর্তী: স্ত্রীর সঙ্গে অবৈধ সম্পর্ক গড়ে তুলেছিল তার প্রেমিক। আর তার প্রতিশোধ নিতেই পরিকল্পনা করে প্রেমিক–‌সহ তার আত্মীয়দের বিদ্যুৎস্পৃষ্ট করে মারল স্বামী?‌‌ তার বিরুদ্ধে এমনই গুরুতর অভিযোগ উঠেছে। অভিযুক্ত পালিয়ে যাওয়ার পথে তাকে বালিগঞ্জ রেল স্টেশনে ধরে ফেলে এলাকার মানুষ। তারপর ঘটনাস্থলে নিয়ে এসে বেধড়ক মারধর করে। আশঙ্কাজনক অবস্থায় পুলিশ তাকে বেহালার বিদ্যাসাগর হাসপাতালে ভর্তি করেছে। বৃহস্পতিবার ভোর রাতে এই ঘটনা ঘটে মহেশতলার আক্রা এলাকার বগা নোয়াপাড়াতে। এলাকার মানুষের মতে, অভিযুক্তের স্ত্রী কয়েকদিন হল প্রতিবেশী একজনের সঙ্গে ঘর ছেড়েছে। তার প্রতিশোধ নিতেই স্ত্রীর প্রেমিকের আত্মীয়দের বিদ্যুৎস্পৃষ্ট করে মারার পরিকল্পনা করে অভিযুক্ত। বাড়ির সামনে বিদ্যুতের তার ঝুলিয়ে আগুন লাগিয়ে চিৎকার করতে থাকে। আর ওই আগুন থেকে বের হতে গিয়েই বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে মারা গেছেন ৩ জন। তাদের মধ্যে পুলিশের মতে প্রেমিক থাকলেও, বাসিন্দাদের মতে প্রেমিকের জামাইবাবু রয়েছেন। মৃতরা হলেন মহম্মদ রহমত (‌২৭), সুলতান আহমেদ (‌৪৫) এবং শেখ জাকির হোসেন (‌২৩)‌। অভিযুক্তের নাম শেখ রব্বান ওরফে রাবিয়াল মিস্ত্রি। পুলিশ জানায়, রাবিয়ালের বাড়ি মুর্শিদাবাদ‌ জেলার জঙ্গিপুরের কুলগাছি দক্ষিণ পাড়াতে। রাজমিস্ত্রির কাজ করতে গত এক বছর হল রাবিয়াল তার স্ত্রী ফরিদাকে নিয়ে বগা নোয়াপাড়াতে ঘর ভাড়া করেছিল। প্রতিবেশী এক যুবকের সঙ্গে তার স্ত্রীর অবৈধ প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। তাতেই রাবিয়াল ওই যুবককে মারার পরিকল্পনা করে। বুধবার রাতে তার ঘর থেকে প্রায় ৫০ মিটার দূরের মহম্মদ রহমতের বাড়ির সামনে বিদ্যুতের তার ঝোলায়। তারপর রাত ৩টে নাগাদ নিজের ঘরের সামনে আগুন লাগিয়ে চিৎকার করতে থাকে। তাতেই রহমত–‌সহ অন্যরা বাঁচাতে ছুটে আসতে যান। তাতেই তাঁরা বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হন। এলাকার মানুষের মতে, সুলতান আহমেদের শ্যালকের সঙ্গে রাবিয়ালের স্ত্রীর সম্পর্কের জেরে তার স্ত্রী বাড়ি ছাড়ে। তাতেই রাবিয়াল প্রতিশোধ নেবে বলে ঠিক করে। পরিকল্পনা করে সুলতানের বাড়ি–‌সহ কয়েকজনের বাড়ির সামনে বিদ্যুতের তার ঝোলায়। বুধবার রাতে সেখানে একটি বিয়ের বাড়ি ছিল সেখানে গিয়ে অন্যদের সঙ্গে সেও আনন্দ করে। তারপর ভোর রাতে আগুন ধরিয়ে চিৎকার করে। ওই আগুন থেকে বাঁচতে গিয়েই তার স্ত্রীর প্রেমিকের জামাইবাবু–‌সহ দুজন আত্মীয় বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে মারা যান। 

জনপ্রিয়

Back To Top