অমিতকুমার ঘোষ, কৃষ্ণনগর: মুখে মানুষের উপকারের জন্যে একটাও কথা নেই। মুখে মানুষের ভাত কাপড়, বাসস্থানের কথা নেই। শুধু ভোটের রাজনীতি করার জন্যে এনআরসি, ক্যা— এইসব নিয়ে আসছে বিজেপি। এভাবেই বিজেপি–‌কে বিঁধলেন রাজ্যের মন্ত্রী রাজীব ব্যানার্জি। মন্ত্রী রাজীব ব্যানাজি৴ এদিন কৃষ্ণনগরে এসেছিলেন দলের এনআরসি এবং ক্যা–বিরোধী মিছিলে অংশ নিতে। মিছিল কৃষ্ণনগর রাজবাড়ির মাঠ থেকে শুরু হয়। পরে কৃষ্ণনগরের সদর হাসপাতাল মোড়ে সভা করেন তিনি। 
সেই জনসভায় মন্ত্রী বলেন, ‘‌আদালত যদি নাগরিকত্ব সংশোধন আইন বাতিল না করে, তবে মানুষই সেটা বাতিল করবে। মানুষ কী না পারে। বার্লিনের প্রাচীর ভেঙেছিল মানুষই।’‌ বিজেপি–‌র নেতাদের ‘‌পাগল’‌ সম্বোধন করে তিনি বলেন, ‘‌এঁদের কথার ঠিক নেই। যখন প্রধানমন্ত্রী বলছেন সব রাজ্যে এনআরসি করা হবে না, তখনই স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলছেন গোটা দেশেই এনআরসি হবে। কখনও বলছে এই রাজ্য থেকে দুই লাখ লোক তাড়ানো হবে। আবার কখনও বলছে এক লাখ লোক তাড়ানো হবে। আবার কখনও বলছে ৫০ হাজার মানুষ তাড়ানো হবে।’‌ রাজীব ব্যানাজি৴ আরও বলেন, ‘‌আগে আমাদের দেশের অর্থনীতির জন্যে গর্ব হত। বিশ্বব্যাপী মন্দার মধ্যেও আমাদের দেশের অর্থনীতি মাথা তুলে দঁাড়াত। আর এখন নরেন্দ্র মোদির প্রধানমন্ত্রিত্বে দেশের আর্থিক বৃদ্ধির হার সর্বনিম্ন। বেকারত্বের সর্বোচ্চ শিখরে পৌঁছেছে এই ভারতবর্ষ। জিনিসপত্রের দাম বেড়ে যাচ্ছে। কলকারখানা বন্ধ হয়ে নতুন নতুন বেকার সৃষ্টি হচ্ছে। প্রায় ছ’‌বছর হয়ে গেল নরেন্দ্র মোদির সরকার ক্ষমতায় এসেছে। কিন্তু মানুষের জন্যে খাদ্য, বস্ত্র, বাসস্থানের কোনও কথা নেই তাদের মুখে। বিদ্যুৎ, পানীয় জলের কোনও কথা নেই। কর্মসংস্থানের কোনও কথা নেই। আর বিজেপি এই মুহূতে৴ ক্যা নিয়ে এসেছে ভোটের রাজনীতিতে ঢাল হিসাবে ব্যবহার করতে।’‌ এদিনের সভায় উপস্থিত ছিলেন সাংসদ মহুয়া মৈত্র, মন্ত্রী উজ্জ্বল বিশ্বাস, বিধায়ক গৌরীশঙ্কর দত্ত প্রমুখ। ‌

জনপ্রিয়

Back To Top