আজকালের প্রতিবেদন- সোমবার সন্ধেয় হঠাৎ মিনিটখানেকের ঝড়ে প্রচুর গাছ ভেঙে পড়ল বিধাননগর ও সংলগ্ন এলাকায়। বেশ কয়েকটি জায়গায় অস্থায়ী কিছু কাঠামো ভেঙে পড়ে। প্রবল ঝড়ের সঙ্গে পড়ল বড় বড় ফোঁটায় বৃষ্টি। শিলাবৃষ্টিও হয়। বিধাননগরে ডি এল ব্লক ১০ নম্বর ট্যাঙ্ক লাগোয়া একটি বাড়ির সামনে গাড়ির ওপর গাছ ভেঙে পড়ে। আবহাওয়া দপ্তর সূত্রে জানা গেছে, গরম হাওয়া ও বাড়তি জলীয় বাষ্পের কারণে হঠাৎ বজ্রগর্ভ মেঘ জমে এই ঝড়বৃষ্টি। বিধাননগরের পাশাপাশি দমদমেও বৃষ্টি হয়। হুগলি, বর্ধমান, নদিয়াতেও বৃষ্টি হয়। সঙ্গে জোড়ো হাওয়া। আবহাওয়া দপ্তর জানিয়েছে, আজ, মঙ্গলবারও দক্ষিণবঙ্গের বিভিন্ন জায়গায় বিক্ষিপ্ত বৃষ্টি হতে পারে। এদিকে, ‌গত কয়েক দিনের মধ্যে বিচ্ছিন্নভাবে বিভিন্ন জায়গায় ঝড়বৃষ্টি হয়েছে। এর ফলে বিদ্যুৎ পরিষেবা কিছুটা ব্যাহত হয়েছে। সোমবার বিদ্যুৎমন্ত্রী শোভনদেব চট্টোপাধ্যায় জানিয়েছেন, ‘‌বিদ্যুৎ দপ্তরের কর্মীরা অক্লান্ত পরিশ্রম করে বিদ্যুৎ পরিষেবা চালু করে দিয়েছেন। তাঁদের ধন্যবাদ।’‌ কিছু জায়গায় এখনও বিদ্যুৎ চালু হয়নি। সাধারণ মানুষকে বিদ্যুৎমন্ত্রী ধৈর্য ধরতে বলেছেন। রাজ্যের মন্ত্রী সিদ্দিকুল্লা চৌধুরির বাড়িতে বিদ্যুৎসংযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়। শোভনদেবকে ফোন করার পর আলো এসে যায়। শোভনদেব বলেন, ‘‌সোমবার সন্ধেয় সল্টলেক সেক্টর ফাইভে ঝড়বৃষ্টি হয়েছে। অফিসারদের খোঁজখবর নিতে বলা হয়েছে।’‌ আপাতত শোভনদেববাবু বাড়ি থেকেই কাজ করবেন।‌‌‌

জনপ্রিয়

Back To Top