আজকালের প্রতিবেদন: আসন্ন বর্ষায় শহরের রাস্তায় জমা জল আটকাতে এবং সুষ্ঠু নিকাশি ব্যবস্থা বজায় রাখতে এখন থেকেই কাজ শুরু করে দিয়েছে হাওড়া পুরনিগম। শুক্রবার হাওড়া পুরনিগমের প্রশাসক পর্ষদের বৈঠকে এ ব্যাপারে বিস্তারিত আলোচনা হয়। ছিলেন প্রশাসক পর্ষদের সদস্য সমবায়মন্ত্রী অরূপ রায়, অনগ্রসর শ্রেণিকল্যাণমন্ত্রী রাজীব ব্যানার্জি, ক্রীড়া রাষ্ট্রমন্ত্রী লক্ষ্মীরতন শুক্লা, প্রাক্তন মেয়র রথীন চক্রবর্তী, পুর কমিশনার তথা প্রশাসক পর্ষদের চেয়ারম্যান বিজিন কৃষ্ণা।
ভোটের জেরে দু’‌মাস পর এদিন পুরনিগমে হওয়া প্রশাসক পর্ষদের এই বৈঠক চলে প্রায় দু’ঘণ্টা ধরে। বৈঠকে নিকাশি, পানীয় জল ও জঞ্জাল সাফাইয়ের মতো নাগরিক পরিষেবাগুলি ঠিকঠাক বজায় রাখার ওপর সর্বাধিক গুরুত্ব দেওয়া হয়। আসন্ন বর্ষার মরশুমে নিকাশি সমস্যা নিয়ে যাতে শহরবাসীকে জেরবার হতে না হয়, সেইজন্য এখন থেকেই উপযুক্ত পদক্ষেপ নিতে পুরনিগম কর্তৃপক্ষকে বৈঠকে বলা হয়েছে। এ ব্যাপারে পুর কর্তৃপক্ষকে একটা নির্দিষ্ট রোড ম্যাপ তৈরি করতে বলা হয়েছে। এই কাজে কারও কোনও গাফিলতি থাকলে, দ্রুত ব্যবস্থা নেওয়া হবে। ১৫ দিন পর ফের প্রশাসক পর্ষদের বৈঠকে এই কাজের অগ্রগতির পর্যালোচনা করা হবে। এর পাশাপাশি নিয়মিত জঞ্জাল সাফাই ও প্রচণ্ড গরমে পানীয় জলের সরবরাহ ঠিকঠাক বজায় থাকছে কিনা সে দিকে বিশেষ নজর দিতে বলা হয়েছে। পাশাপাশি শহরে বেআইনিভাবে তৈরি হওয়া বাড়ির বিরুদ্ধেও কড়া পদক্ষেপ নেওয়া হবে বলে ঠিক হয়েছে। এছাড়া শহরের জরাজীর্ণ ও বিপজ্জনক বাড়িগুলি সংস্কার না করা হলে, সেগুলি ভেঙে ফেলার বিষয়েও আলোচনা হয়েছে। পুরনিগমে নিযুক্ত প্রায় ৪০০ জন অস্থায়ী কর্মীর বেতন নিয়ে উদ্ভুত সমস্যা সমাধানের বিষয়টিও এদিনের আলোচ্য বিষয়ের মধ্যে ছিল। 

বৈঠক শেষে ৩ মন্ত্রী অরূপ রায়, রাজীব ব্যানার্জি ও লক্ষ্মীরতন শুক্লা। ছবি:‌ কৌশিক কোলে‌

জনপ্রিয়

Back To Top