চন্দ্রনাথ বন্দ্যোপাধ্যায়, শান্তিনিকেতন, ২ ডিসেম্বর - কলাভবনের নন্দন মেলায় বিকৃত সুরে রবীন্দ্রসঙ্গীত! আর তাতেই উঠল বিতর্কের ঝড়। সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং সাইটে সমালোচনায় মুখর হয়ে উঠেছেন সকলেই। পাশাপাশি আশ্রমিকরাও ক্ষুব্ধ এই ঘটনায়।
নকশাল নেতা সুবোধ মিত্র জানান, এই ধরনের ঘটনা যঁারা ঘটিয়েছেন, তঁাদের শাস্তি হওয়া উচিত। কর্তৃপক্ষের কেন নজর ছিল না, তা নিয়েও প্রশ্ন তোলেন তিনি। কবিগুরুর প্রতিষ্ঠানকে কলুষিত করছেন যঁারা, তঁাদের শাস্তি দাবি করেন আশ্রমিক দীপেশ রায়চৌধুরিও। তিনি জানিয়েছেন, শান্তিনিকেতনে কবিগুরুর গানের বিকৃতি মেনে নেওয়া যায় না। এমন সুরের মাধ্যমে গুরুদেবকে অসম্মানিত করা হয়েছে। রবীন্দ্রনাথ নিজে বলে গেছেন, ‌তঁার গান–সুর নিয়ে কেউ যেন বিকৃতি না ঘটান।‌ বিশ্বভারতীর হাত থেকে কপিরাইট চলে যাওয়ার পর তঁার গান নিয়ে এখন যা খুশি তা–ই হচ্ছে। এই ঘটনায় তারই প্রভাব পড়েছে রবীন্দ্রনাথকে না–জানা বাইরে থেকে পড়তে আসা কিছু ছাত্রছাত্রীদের ওপর। উল্লেখ্য, বিখ্যাত চিত্রশিল্পী নন্দলাল বসুর জন্মদিনকে স্মরণ করে প্রতি বছরে ১ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত হয় নন্দন মেলা। এই মেলার অনুষ্ঠানেই রবীন্দ্রনাথের ‘সেদিন দুজনে দুলেছিনু বনে’ গানটি বিকৃত সুরে গেয়ে ওঠেন কয়েকজন।

জনপ্রিয়

Back To Top