সুনীল চন্দ, রায়গঞ্জ, ৫ মার্চ- চাকরি হল রাবেয়া খাতুনের। হেমতাবাদে নিরাপত্তার বেড়াজাল ডিঙিয়ে মুখ্যমন্ত্রীর মঞ্চে উঠে যাওয়া সেই মেয়েটির নাম রাবেয়া। শিলিগুড়ির একটি বেসরকারি সংস্থার মাধ্যমে তাঁর চাকরি হয়েছে রায়গঞ্জ সুপার স্পেশ্যালিটি হাসপাতালের ‘ওয়ার্ড গার্ল’ পদে।
২২ ফেব্রুয়ারি হেমতাবাদে মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জির সরকারি পরিষেবা প্রদান অনুষ্ঠানে চাকরির দাবি জানাতে সভামঞ্চে উঠে যান রাবেয়া। নিরাপত্তা রক্ষীদের নজর এড়িয়ে সভামঞ্চে উঠে হুমড়ি খেয়ে পড়েন মুখ্যমন্ত্রীর পায়ের সামনে। রাবেয়ার বোন আমেরা খাতুনও অন্য সিঁড়ি দিয়ে মঞ্চে ওঠার চেষ্টা করলে নিরাপত্তা রক্ষীরা আটকে দেন তাঁকে। এরপর দুই বোনকে সেদিনই অসুস্থতার কারণে ভর্তি করা হয় রায়গঞ্জ হাসপাতালে। এতদিন সেখানেই চিকিৎসা চলছিল দুই বোনের। শনিবার আমেরাকে পাঠিয়ে দেওয়া হয় তাঁর করণদিঘির ছাগলকাটি গ্রামে। অন্যদিকে, রাবেয়াকে নিয়ে যাওয়া হয় শিলিগুড়ির হাকিমপাড়ায় একটি বেসরকারি এজেন্সির দপ্তরে। সেখানে তাঁর হাতে দেওয়া হয় ‘ওয়ার্ড গার্ল’–‌এর নিয়োগপত্র–সহ ইউনিফর্ম ও পরিচয়পত্র। রবিবার রাবেয়া যোগ দেন কাজে। 
রাবেয়ার আর এক বোন সুলেখা খাতুন জানান, জেলা প্রশাসনের পক্ষে তাঁদের বোনকে চাকরি দেওয়া হবে বলা হয়েছে। দিদিকে আপাতত বেসরকারি সংস্থায় কাজ করতে বলা হয়েছে। পরে স্থায়ী চাকরির ব্যবস্থা করে দেবে প্রশাসন। এদিকে, আমেরাকে প্রশাসনের তরফে সোমবার নিয়ে যাওয়া হয় ইসলামপুর কলেজে। ওই কলেজের প্রথম বর্ষের ছাত্রী আমেরা। তিনি পরীক্ষার ফর্ম ফিলআপ করেন এদিন। তাঁর পরীক্ষা দিতে এবং পড়াশোনা চালিয়ে যেতে যাতে কোনও অসুবিধা না হয় তা প্রশাসন দেখবে বলে আমেরাকে এদিন আশ্বস্ত করা হয়।

রায়গঞ্জ হাসপাতালে রাবেয়া। ছবি: প্রতিবেদক

জনপ্রিয়

Back To Top