দীপেন গুপ্ত,পুরুলিয়া: পুরুলিয়া জেলা সফরে এসে মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি ঘোষণা করে গিয়েছিলেন পুরুলিয়ায় হেলিকপ্টার পরিষেবা চালু করা  হবে। জেলায় শিল্পায়নের প্রসারে এই পরিষেবা চালু করার কথা বলেন তিনি। মুখ্যমন্ত্রীর সেই ঘোষণার পর খুশি হয়েছিলেন জেলার সাধারণ মানুষ, খুশি হয়েছিলেন জেলার শিল্পপতিরাও।  মঙ্গলবার রাজ্যের পরিবহণ দপ্তরের উদ্যেগে পুরুলিয়ার ছররায় হেলিকপ্টারের পরীক্ষামূলক উড়ান হয়। ছররার পরিত্যক্ত বিমানঘাঁটিতে হেলিকপ্টার নামিয়ে পরীক্ষা করেন আধিকারিকেরা। পুরুলিয়ার জেলাশাসক অলোকেশপ্রসাদ রায় বলেন, ‘‌মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি ঘোষণা করে গিয়েছিলেন পুরুলিয়ায় হেলিকপ্টার পরিষেবা চালু করা হবে। মঙ্গলবার তার পরীক্ষামূলক উড়ান হয়। এরপর বিশেষজ্ঞরা যে রিপোর্ট দেবেন তার ওপর কাজ এগোবে।’‌
পুরুলিয়া শহরের উপকণ্ঠে পুরুলিয়া–বরাকর সড়কের মফস্‌সল থানার ছররায় একটি পরিত্যক্ত বিমানঘাঁটি রয়েছে। দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের সময় সেখানে জ্বালানি ভরার জন্য বিমান ওঠানামা করত। দীর্ঘদিন পরিত্যক্ত অবস্থায় বিমানঘাঁটিটি পড়ে রয়েছে। ২০০৩ সালে তৎকালীন বামফ্রন্ট সরকার ওই বিমানঘাঁটি চালু করার ব্যাপারে উদ্যোগী হলেও তেমন কোনও ফল হয়নি। জানা গেছে, ওই জমি কেন্দ্রীয় সরকারের প্রতিরক্ষা দপ্তরের অধীনে রয়েছে। ২০০৮–০৯ সালে এবং ২০১১–২০১২ সালে বিমানবন্দর তৈরির উদ্যোগ কার্যকর হয়নি। তবে মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জির ঘোষণার পর আশার আলো দেখছেন জেলার প্রশাসনিক আধিকারিক থেকে শুরু করে সাধারণ মানুষ, এমনকী শিল্পপতিরাও। আশায় দেশ–বিদেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে ছৌ–ঝুমুরের দেশে আসা পর্যটকেরাও। 

জনপ্রিয়

Back To Top