আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ অলৌকিক হলেও এটাই সত্যি। অজয় নদের তীরে বালিচর থেকে উঠে আসছে একের পর এক মহাদেব। ছোট,বড় মাপের শিবলিঙ্গ। প্রতিদিনের মতো অজয় নদের তীরে বালি তুলতে যান স্থানীয় বাসিন্দারা। বালি তোলার কাজও শুরু করে দেন জোরকদমে। কিন্তু সেই বালির তোলার কাজ করতে গিয়েই চোখে পড়ে অবিশ্বাস্য কাণ্ড। দেখতে পান সেই বালির চর থেকে বেরিয়ে আসছে শিবলিঙ্গ গুলি। পরপর ১০ টি শিবলিঙ্গ উঠে আসে। আর এই খবর ছড়িয়ে যায় গোটা গ্রামে এবং আশেপাশের গ্রামগুলিতেও। দুর্গাপুরের লাউদোহা ফরিদপুর ব্লকের গোগলা গ্রামপঞ্চায়েত এলাকায় ভিড় জমতে শুরু করে গ্রামবাসীদের। গ্রামবাসীদের ধারণা করোনা মহামারীর হাত থেকে তাঁদের বাঁচাতে অজয়ের তীরে উঠে এসেছেন স্বয়ং মহাদেব। তাই ভক্তিভরে গ্রামবাসীরা শুরু করে দেন পুজোপাঠ। এরকম শিবলিঙ্গ গ্রামবাসীরা আগে কোনওদিন দেখতে পাননি। তাঁদের বিশ্বাস মহাদেবের আবির্ভাবেই দূর হবে মারণ ভাইরাস করোনা। করোনা থেকে ভয় দূর করতে, তাঁদের প্রাণ রক্ষা করতেই মহাদেব এসেছেন। তাই গ্রামবাসীরা নিত্য পুজোর ব্যবস্থা করেছেন। অলৌকিক এই ঘটনা নিয়ে হইচইয়ের খবর পশ্চিম বর্ধমানের জেলার নানা প্রান্তে ছড়িয়ে পড়েছে। তা শুনে জেলার নানা প্রান্তের মানুষের মধ্যে আগ্রহ বাড়ছে মহাদেব দর্শনের। অনেকেই আসছেন মহাদেবের দর্শনে। পুজো দিচ্ছেন। সকলের একটাই প্রার্থনা মহাদেব আমাদের বাঁচিয়ে দাও। করোনাকে দূর করে দাও। আর এই ঘটনাগুলি থেকে আজও পরিষ্কার বোঝা যাচ্ছে যে এখনও গ্রাম বাংলায় অলৌলিক কাণ্ডে দেবদেবীর উপর মানুষ বেশি ভরসা করেন। বিজ্ঞানের থেকেও অলৌকিক দেবদেবীর উপর তাঁদের আস্থা অনেক বেশি। 

জনপ্রিয়

Back To Top