বিজয়প্রকাশ দাস, পূর্ব বর্ধমান: এ আরেক পোস্টমাস্টারের গল্প। ছেলেবেলায় দিন কেটেছিল চরম দারিদ্রে। সে কথা মনে রেখে বর্ধমান স্টেশনের ভবঘুরে, অনাথ ও দুঃস্থ পথশিশুদের নিয়ে নিজের মেয়ের জন্মদিন পালন করলেন স্টেশনের পোস্ট অফিসের সাব পোস্টমাস্টার।  বর্ধমান স্টেশনের পোস্ট অফিসের সাব পোস্টমাস্টার সুত্তম রুইদাস। তাঁর ছেলেবেলা কেটেছিল চরম অভাবে। অনেকদিনই তাঁকে আধপেটা খেয়ে স্কুল যেতে হয়েছিল। আজ তিনি আর্থিকভাবে স্বচ্ছল। তবে ভুলতে পারেননি ছেলেবেলার সেই দুঃসহ দিনগুলি কথা। স্টেশনে ভবঘুরে-অনাথ পথ শিশুদের দেখে ঠিক থাকতে পারেন না সুত্তম। রোজই কাজের ফাঁকে লক্ষ্য করতেন স্টেশনে ইতস্তত ঘুরে বেড়ানো অসহয় শিশুদের। কখনও কখনও তাদের হাতে তুলে দিয়েছেন খাবারও। এই সব শিশুদের জন্য কিছু করার ইচ্ছে ছিল সুত্তম রুইদাসের। তাদের নিয়ে মেয়ের জন্মদিন পালনের কথা ভেবেছিলেন তিনি। এ বছর পাঁচে পা দিল মেয়ে ভাস্বতী। আজ তাই মেয়ের পঞ্চম জন্মদিন পালন করলেন বর্ধমান স্টেশনের অনাথ ও দুঃস্থ পথ শিশুদের সঙ্গে নিয়ে। এদিন তিনি ডেকে নিয়েছিলেন  ২৫০টি শিশুকে। আয়োজনেরও অভাব ছিল না। কাটা হয়েছে কেক, ছিল দুপুরের খাওয়ার আয়োজন।  ভাস্বতী নিজের হাতে পথ শিশুদের একে একে সবার মুখে তুলে দেয় কেক। আমন্ত্রিত পথ শিশুদের পাত পেড়ে খাইয়েছে একরত্তি এই মেয়ে। তাদের পাতে নিজের হাতে তুলে দেয় ভাত, ডাল, মাংস, চাটনি, বোদেঁ ও রসগোল্লা। সঙ্গে দিনভর ছিল শিশুদের হই–হুল্লোড়। আর চোখের জলে গাল ভিজিয়ে সুত্তম রুইদাস নিঃশব্দে ছুঁয়ে গেলেন তাঁর শৈশবে ফেলে আসা সেই দুঃসহ দিনের স্মৃতিকে। 

জনপ্রিয়

Back To Top