আজকালের প্রতিবেদন: ‌‌‌‌সুফল বাংলা, রেশন দোকানের পর এবার স্বনির্ভর গোষ্ঠীগুলির মাধ্যমে পেঁয়াজ বিক্রির সিদ্ধান্ত নিল রাজ্য সরকার। মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি চান, রাজ্যের মানুষ যাতে যতটা সম্ভব কম দামে পেয়াঁজ কিনতে পারেন। রাজ্যের আশা ডিসেম্বরের মাঝামাঝি ইজরায়েল থেকে পেঁয়াজ আমদানি শুরু হলে পেঁয়াজের দাম কমতে শুরু করবে। এখন সুফল বাংলায় ৫৯ টাকা কেজি দরে পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে। কিছুদিনের মধ্যে রেশন দোকান থেকেও পেঁয়াজ বিক্রি করা হবে বলে জানিয়েছেন খাদ্যমন্ত্রী জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক। এবার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে, যে সমস্ত স্বনির্ভর গোষ্ঠী কৃষিজ পন্য নিয়ে কাজ করে তাদের মাধ্যমে কলকাতা ও তার আশপাশে পেঁয়াজ বিক্রি করা শুরু হবে। ইতিমধ্যেই রাজস্থানের পেঁয়াজ আসতে শুরু করে দিয়েছে। কিন্তু তার পরিমাণ এতই কম যে বাজারে তার প্রভাব বিশেষ পড়ছে না বলেই কৃষি বিপনন দপ্তর সুত্রে খবর।  রাজ্যে সাধারণতঃ ৭০ হাজার টন পেঁয়াজ লাগে। সেখানে এখন ২০ হাজার টনের মত জোগান রয়েছে। তাই এই সমস্যা।‌ 
সম্প্রতি খাদ্যমন্ত্রী জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক জানিয়েছিলেন, সরকারিভাবে অনুমোদন এলেই রাজ্যের রেশন দোকানগুলি তে পেঁয়াজ পাঠিয়ে দেওয়া হবে। পরিবার প্রতি ১ কেজি করে পেঁয়াজ দেওয়া হবে। দোকান পিছু ৫ ক্যুইন্টাল করে পেঁয়াজ দেওয়া হবে বলে ঠিক হয়েছে। প্রাথমিক পর্যায়ে কলকাতার ৯৩৪টি রেশন দোকানে পেঁয়াজ বিক্রি শুরু হবে। পেঁয়াজের লাগাম ছাড়া দাম নিয়ন্ত্রণ করতে মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জির নির্দেশে একটি টাস্ক ফোর্স কলকাতার বিভিন্ন বাজারে অভিযাম চালায়। সাধারণ মানুষের সুবিধার জন্য সুফল বাংলা বিপণি থেকে পেঁয়াজ বিক্রি শুরু করে কৃষি বিপণন দপ্তর।‌ প্রথমে ৬০ টাকা করে বিক্রি করা হচ্চিল। পরে দাম কমিয়ে ৫৯ টাকায় বিক্রি শুরু হয়। ‌

জনপ্রিয়

Back To Top