‌স্বদেশ ভট্টাচার্য, বসিরহাট: নিজের মতো নিজের কেন্দ্রে ভোট প্রক্রিয়া ঘুরে দেখলেন বসিরহাটের তৃণমূল প্রার্থী নুসরত জাহান। রবিবার সকাল ৮টায় পাম অ্যাভিনিউর ইডেন ইম্পিরিয়াল থেকে বের হন নুসরত। সেখান থেকে যান ভোট দিতে। সোয়া ৮টায় বালিগঞ্জ হাইস্কুলে নিজের ভোট দেন। সেখান থেকে নুসরত যে কেন্দ্রে নির্বাচনে লড়ছেন, সেই বসিরহাটের উদ্দেশে রওনা দেন। কোথায় কেমন ভোট হচ্ছে, তা দেখতে বুথে বুথে ঘোরেন।
দু’‌দিন আগে নুসরতের দিদা প্রয়াত হয়েছেন। স্বাভাবিক ভাবে গত ২ দিন মনমরা ছিলেন। তার ওপর পবিত্র রমজান উপলক্ষে রোজা রাখছেন নুসরত। তাই এদিন সকাল সকাল চলে আসেন নিজের কেন্দ্রে। প্রথমে যান বসিরহাট দক্ষিণ কেন্দ্রের টাকি পুরসভার টাকি রামকৃষ্ণ মিশনের প্রাথমিক স্কুলের ২৬৫ নম্বর বুথে। সেখানে দীর্ঘক্ষণ ইভিএম মেশিন কাজ করেনি। ফলে ভোটাররা সকাল থেকে লাইনে দঁাড়িয়ে থেকে বিরক্ত হচ্ছিলেন। নুসরত গিয়ে প্রিসাইডিং অফিসারদের সঙ্গে কথা বলেন। ঘণ্টা দুয়েক পরে নতুন ইভিএম মেশিন এনে ভোট গ্রহণ শুরু হয়। সেখান থেকে নুসরত যান টাকি সরকারি বিদ্যালয়ে। সঙ্গে ছিলেন বসিরহাট দক্ষিণের বিধায়ক দীপেন্দু বিশ্বাস। ভোটদানে মানুষের উৎসাহ দেখে নুসরত ভীষণ খুশি। 
তিনি বলেন, ‘‌‌মানুষ অসীম ধৈর্যের পরীক্ষা দিয়েছেন। বুথে এসে নিজের মতদান করেছেন। মহিলারা বাড়ির রান্না ফেলে রেখে বুথে এসে এই গরমে লাইন দিয়ে ভোট দিয়েছেন‌। আমি আশাবাদী। ভোটদানে মানুষের মধ্যে এত সাড়া দেখে বিরোধীরা অন্তত বলতে পারবেন না মানুষকে ভোট দিতে দেওয়া হয়নি।’‌ টাকি ঘুরে নুসরত চলে যান বসিরহাট পুর এলাকার দণ্ডীরহাট হাইস্কুলে। সেখানে ভোট প্রক্রিয়া দেখে সন্তুষ্ট নুসরত। এরপর নলকোঁড়া ঘুরে বসিরহাট শহরের কয়েকটি বুথে যান। খোলাপোতায় নির্বাচনী কার্যালয়ে কিছু সময় কাটান। সেখানে তঁার নির্বাচনী এজেন্ট সরোজ ব্যানার্জি–সহ দলীয় নেতাদের সঙ্গে কথা বলেন। এলাকার রিপোর্ট নেন। কয়েকটি বুথে ঘোরেন। নুসরতের চিফ ইলেকশন এজেন্ট সরোজ ব্যানার্জি অভিযোগ করেন, ‘‌হাড়োয়ার কয়েকটি বুথে কেন্দ্রীয় বাহিনী ভোটারদের সরাসরি বিজেপি–কে ভোটদানের কথা বলেছে।’‌ ‌‌
এদিনের তাপমাত্রা চল্লিশ ছুঁই ছুঁই। বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে পারদও চড়ছে। নুসরত এলেন হলুদ–কালো চেক শাড়িতে। এই প্রথম নুসরতের চোখে হালকা কাচের রোদ চশমা। বুথ এলাকায় গেলেন ব্যক্তিগত দেহ রক্ষীদের না নিয়েই। ভোট দিয়ে বেরিয়ে আসছেন এরকম মানুষে সঙ্গে কথাও বললেন। বুথ এলাকায় যেতেই মানুষ এগিয়ে আসেন নায়িকা প্রার্থীর কাছে। এদিনও নুসরতকে নাগালে পেয়ে অনেকেই এগিয়ে এলেন মোবাইল ফোনে ছবি তোলার জন্য। নুসরত তঁাদের বলেন, ‘‌আপনারা যেভাবে আমাকে সমর্থন করছেন, তাতে আমি জয় সম্পর্কে নিশ্চিত। অনেক মহিলা।’‌ নতুন ভোটারের সঙ্গে ছবি তুলে নুসরত বলেন, ‘‌এরপর আমাকে আপনারা এত বেশি করে পাবেন, তখন আর ছবি তুলতে ইচ্ছে করবে না।’‌ আজকের সফরসঙ্গী বিধায়ক দীপেন্দু বিশ্বাস বলেন, ‘‌বসিরহাট কেন্দ্রে শান্তিপূর্ণ ভোট হয়েছে। উন্নয়নের পক্ষে ভোট দিয়েছেন মানুষ। বড় ব্যবধানে নুসরত জিতবেন।’‌

জনপ্রিয়

Back To Top