বাড়ছে কোভিড সংক্রমণ, দার্জিলিংয়ে ঘুরতে গেলে বাধ্যতামূলক COVID রিপোর্ট

আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ দার্জিলিংয়ে বাড়ছে কোভিড সংক্রমণ। করোনা রুখতে কড়া পদক্ষেপ নিচ্ছে দার্জিলিং জেলা প্রশাসন। দার্জিলিংয়ে ঘুরতে গেলে এবার থেকে রাখতেই হবে COVID রিপোর্ট। পর্যটকদের কোভিড রিপোর্ট সঙ্গে রাখা এবার থেকে বাধ্যতামূলক করা হল। শুধু কোভিড রিপোর্টই নয় ভ্যাকসিনের ২ টি ডোজ নেওয়া হয়েছে কিনা সেটাও দেখাতে হবে। ভ্যাকসিনের শংসাপত্র সঙ্গে নিয়ে আসতে হবে পর্যটকদের। তবেই পর্যটকরা প্রবেশ করতে পারবেন হোটেলে, এদিন এমনই নির্দেশ জারি করলেন দার্জিলিংয়ের জেলাশাসক। রাজ্যে ধীরে ধীরে কোভিড সংক্রমণের গ্রাফ অনেকটাই কমছে কিন্তু বেশ কয়েকটি জেলায় সংক্রমণ বাড়ছে। দার্জিলিং জেলায় কোভিড সংক্রমণের হার বাড়ছে। যা চিন্তা বাড়াচ্ছে দার্জিলিং জেলা প্রশাসনের। দার্জিলিংয়ে প্রতিদিনই ৭০ জনের কাছাকাছি করোনায় আক্রান্ত হচ্ছেন। রাজ্যজুড়ে ৩০ জুলাই অবধি বিধিনিষেধ জারি করা হয়েছে। তবে অধিকাংশ ক্ষেত্রে দেওয়া হচ্ছে ছাড়। তবে ভ্রমণপিপাসু বাঙালি বিধিনিষেধে কিছুটা ছাড় পেতেই রওনা হচ্ছেন পাহাড়ের উদ্দেশে। ইতিমধ্যেই পর্যটকরা গাড়ি নিয়ে পাহাড়ে বেড়াতে আসছেন। তাই প্রশাসনের তরফে কড়া পদক্ষেপ নেওয়া হচ্ছে। সংক্রমণ রুখতে বদ্ধপরিকর দার্জিলিং জেলা প্রশাসন। এ প্রসঙ্গে দার্জিলিংয়ের জেলাশাসক বলেন, ‘‌দার্জিলিং পৌঁছনোর ৭২ ঘণ্টা আগে পর্যটকদের কোভিড টেস্ট করতে হবে। কোভিড টেস্টের রিপোর্ট অথবা ভ্যাকসিনের দুটো ডোজ নেওয়ার শংসাপত্র না দেখাতে পারলে পর্যটকদের হোটেলে প্রবেশের অনুমতি দেওয়া যাবে না। পর্যটকদের কঠোরভাবে পালন করতে হবে করোনার সমস্ত বিধিনিষেধ। কোভিড নিয়ে সচেতনতা বাড়াতে হবে পর্যটকদের মধ্যে। বেড়াতে এলেও ব্যবহার করতে হবে মাস্ক। শারীরিক দূরত্ববিধিও মানতে বলা হচ্ছে।’‌ রাজ্যের অন্যান্য পর্যযটন স্থান গুলিতেও একই রকম নির্দেশ জারি করেছে প্রশাসন। যেমন:‌ দিঘা, শান্তিনিকেতন, তারাপীঠ বেড়াতে গেলেও একই নিয়ম মেনে তবেই ঘুরতে পারবেন।