নিরুপম সাহা, গাইঘাটা: গ্রামে প্রবেশের মুখেই চোখে পড়বে রাস্তার দুধারে দঁাড় করানো বড় বড় দুটি প্ল্যাকার্ড। গ্রামবাসীদের পক্ষে সেখানে আবেদনের সুরে লেখা, ‘‌আপনি প্লাস্টিকমুক্ত শ্রীপুর গ্রামে প্রবেশ করছেন। এই গ্রামে যত্রতত্র প্লাস্টিক ফেলা বা ব্যবহার নিষিদ্ধ। গ্রামটিকে পরিষ্কার রাখতে সকলেই ডাস্টবিন ব্যবহার করুন।’‌‌ গত কয়েক মাস ধরে গ্রামের মহিলারা লাগাতার অভিযান চালিয়ে এভাবেই নিজেদের গ্রামকে প্লাস্টিকমুক্ত করেছেন। উত্তর ২৪ পরগনা জেলার গাইঘাটা ব্লকের শ্রীপুর গ্রামের বাসিন্দাদের এমন কাণ্ডে উচ্ছ্বসিত প্রশাসনের কর্মকর্তারাও। 
জানা গেছে, এই গ্রামের ১৪টি মহিলা স্বনির্ভর গোষ্ঠীর সঙ্গে আশাকর্মী ও একটি পুরুষ স্বনির্ভর গোষ্ঠী যৌথভাবে গ্রাম পরিষ্কার রাখার দায়িত্ব নেন। মাস কয়েক আগে এ ব্যাপারে তঁারা নিজেদের মধ্যে আলোচনাও করে নেন। ডাস্টবিন হিসেবে ব্যবহার করার জন্য ইতিমধ্যেই নিজেরা চঁাদা তুলে ২২টি বড় ড্রাম কিনে গ্রামের বিভিন্ন প্রান্তে তা বসিয়ে দিয়েছেন। গ্রামবাসীরা গ্রামের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে নিজে হাতে প্লাস্টিক কুড়িয়ে তা ওই ডাস্টবিনে জমা করছেন। পরে নির্দিষ্ট দিনে ডাস্টবিন থেকে প্লাস্টিক সংগ্রহ করে গ্রামের শেষ প্রান্তে মাঠের পাশে জমা করছেন। শুধু তাই নয়, আগাছা পরিষ্কার করা থেকে শুরু করে নিয়মিত ব্লিচিং পাউডার ছড়ানোর কাজও বিনা পারিশ্রমিকে করছেন গ্রামের মহিলারা। সঙ্গে সহযোগিতা করছে স্থানীয় একটি ক্লাব ও একটি পুরুষ স্বনির্ভর গোষ্ঠী। আর এই ধরনের কাজের জন্যই তঁারা প্রশাসনের বিভিন্ন দপ্তর থেকে প্রশংসা কুড়িয়েছেন। ইতিমধ্যে বনগঁা মহকুমা প্রশাসন শ্রীপুর গ্রামকে প্লাস্টিকমুক্ত গ্রাম হিসেবে ঘোষণা করেছে। গ্রামের যুবক সঞ্জিত সরকার জানালেন, ৩০ আগস্ট গ্রামের ১৪টি মহিলা স্বনির্ভর গোষ্ঠীর ১৪০ জন সদস্যা, আশাকর্মী, স্থানীয় নাট্যদল, একটি ক্লাব এবং স্থানীয় ইছাপুর হাইস্কুলের ছেলেমেয়েরাও এই শ্রীপুর গ্রামটি পরিষ্কার রাখার দায়িত্ব নেয়। একমাস পরে দেখা যায়, গ্রাম প্লাস্টিকমুক্ত হয়ে গেছে। অবশেষে ২ অক্টোবর বনগঁার মহকুমা শাসক কাকলি মুখোপাধ্যায় শ্রীপুর গ্রামকে প্ল্যাস্টিকমুক্ত গ্রাম হিসেবে ঘোষণা করেন। গ্রামের বাসিন্দা দিপালি মণ্ডল বলেন, ‘‌‌গ্রামের পথঘাট থেকে প্ল্যাস্টিক কুড়িয়ে তা নির্দিষ্ট স্থানে জড়ো করার জন্য আমরা গ্রামের মহিলারা সপ্তাহে ২ দিন করে ২ থেকে ৩ ঘণ্টা সময় দিচ্ছি। আর এতেই সুফল মিলেছে। গ্রাম পরিষ্কার থাকার ফলে এ বছর ডেঙ্গি–সহ বিভিন্ন রোগের আক্রমণ থেকে মুক্তি পেয়েছেন গ্রামবাসীরা।’‌ শ্রীপুর গ্রামে গিয়ে দেখা গেল, গ্রামের শতাধিক মহিলা হাতে গ্লাভস, গায়ে গেঞ্জি পরে বস্তা নিয়ে বেরিয়ে পড়েছেন প্লাস্টিক সংগ্রহ করতে। কেউ ব্লিচিং পাউডার ছড়াচ্ছেন, কেউ স্প্রে করছেন। আবার কেউ বাগান পরিষ্কার করছেন। আর তঁাদের সহযোগিতা করছেন পুরুষ স্বনির্ভর গোষ্ঠীর সদস্যরা। তঁারা চান, প্লাস্টিকমুক্ত পরিচ্ছন্ন গ্রাম গড়তে।

গ্রামের পথঘাট থেকে প্লাস্টিক কুড়োচ্ছেন শ্রীপুর গ্রামের মহিলারা। ছবি:‌ প্রতিবেদক

জনপ্রিয়

Back To Top