Arun Lal: ইডেনে গৃহযুদ্ধ! অরুণ লাল বিরাটদের সমর্থনে, লখনউয়ের জয় চান বুলবুল

সম্পূর্ণা চক্রবর্তী: নবদম্পতির গৃহযুদ্ধ বাঁধিয়ে দিল ইডেন। খোশমেজাজে সেজেগুজে রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স বেঙ্গালুরু বনাম লখনউ সুপার জায়ান্টসের ম্যাচ দেখতে এসেছিলেন অরুণ লাল এবং বুলবুল। কিন্তু ম্যাচ শুরু হতেই সদ্য বিবাহিতরা ভিন্ন মেরুতে। লখনউয়ের সমর্থক অরুণ লালের স্ত্রী বুলবুল। আর বাংলার কোচ চান বেঙ্গালুরুর জয়। দু'জনেরই অবশ্য নিজস্ব কারণ রয়েছে। তবে বিয়ের পর এটাই কি প্রকাশ্যে প্রথম মতবিরোধ? অরুণ লাল বলেন, 'এটাই ক্রিকেটের মজা। কোনও দলকে সমর্থন করাটা ব্যক্তিগত বিষয়। বেঙ্গালুরুতে দু'জন বাংলার ক্রিকেটার আছে। তাই বাংলার কোচ হিসেবে আমি চাই ওরা ভাল খেলুক এবং আরসিবি জিতুক।' বুলবুল অবশ্য লখনউয়ের মালিক সঞ্জীব গোয়েঙ্কার সমর্থনে। কেকেআর বিদায় নেওয়ায় কলকাতার শিল্পপতির দলই আজ তাঁর কাছে হোম টিম। বুলবুল বলেন, 'লখনউয়ের মালিক কলকাতার। সেই হিসেবে ওরা আমাদের এখানকারই টিম। তাই আজ আমি চাই লখনউ জিতুক।' পাশে দাঁড়ানো অরুণ লালের মুখে তখন মুচকি হাসি। বাংলার কোচ শেষে যোগ করেন, 'চাইব সেরা দলই জিতুক।'

মঙ্গলবার গুজরাট-রাজস্থান ম্যাচ দেখতে ইডেনে উপস্থিত ছিলেন তাঁরা। গ্যালারিতে বসে দুই ছাত্র ঋদ্ধিমান সাহা এবং মহম্মদ শামির ম্যাচ দেখেন অরুণ লাল।

একাধিকবার বাংলার অ্যাওয়ে ম্যাচে অরুণ লালের সঙ্গে গিয়েছেন বুলবুল। ঋদ্ধি, শামিদের খেলা আগেও দেখেছেন। কিন্তু তার সঙ্গে এখনকার পার্থক্য কী? বুলবুল বলেন, 'খুব বেশি পার্থক্য নেই। তবে এখন আমি অরুণের স্ত্রী। এটাই আলাদা অনুভূতি।' ঘরের মাঠে বাংলার দুই ক্রিকেটারই ফ্লপ। অরুণ লাল মনে করেন, এক আধটা ম্যাচে এরকম হতেই পারে। এক সপ্তাহ আগে ঋদ্ধির সঙ্গে কথা হয়েছিল তাঁর। বাংলার উইকেটকিপার ব্যাটারকে অনুরোধ করেছিলেন সিদ্ধান্ত বদলের জন্য। এই প্রসঙ্গে অরুণ লাল বলেন, 'আমি বড় দাদা এবং অভিভাবক হিসেবে ওকে অনুরোধ করেছি সিদ্ধান্ত বদলের জন্য। বলেছে ভেবে দেখবে। তবে ব্যক্তিগতভাবে ওর এই সিদ্ধান্ত আমার ভাল লাগেনি।' 

কলকাতায় দুটো প্লে অফ। কিন্তু নেই কেকেআর। অরুণ লালের বিশ্বাস পরের আইপিএলে সফল হবে নাইটরা। তবে কেকেআরে বাংলার ক্রিকেটারদের দেখতে চান। অরুণ লাল বলেন, 'বাংলার ক্রিকেটাররা বিভিন্ন ফ্রাঞ্চাইজিতে খেলছে, অথচ কেকেআরে একজনও নেই। পাঞ্জাব নিজেদের প্লেয়ারদের ভীষণভাবে সাপোর্ট করে। রাজ্যের ক্রিকেটারদের খেলায়। আগামী দিনে কেকেআরেও বাংলার ক্রিকেটারদের  দেখতে চাই।' পরীক্ষার খাতা দেখা নিয়ে ব্যস্ত বুলবুল। তাই হানিমুনের প্ল্যান এখনও করা হয়নি। রঞ্জি খেলতে শুক্রবার বাংলা দল নিয়ে বেঙ্গালুরু উড়ে যাবেন অরুণ লাল। ২ জুন বাংলার কোচের সঙ্গে যোগ দেবেন বুলবুল।

আকর্ষণীয় খবর