আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ গোপন সূত্রে খবর পেয়ে শুক্রবার এক নাবালিকার বিয়ে রুখল মুর্শিদাবাদের নবগ্রাম থানার পুলিশ। আজ দুপুরে ওই নাবালিকার মা যখন তাঁর বিয়ে দেওয়ার জন্য অটো করে নিয়ে যাচ্ছিলেন তখন গোপন সূত্রে খবর পেয়ে পলসন্ডা মোড় সংলগ্ন একটি পেট্রোল পাম্পে অটোটিকে পুলিশ আটকায় এবং তারপর তাদের থানায় নিয়ে আসা হয়। 
পুলিশ সূত্রের খবর প্রায় এক বছর আগে দীর্ঘ রোগভোগের পর ওই নাবালিকার বাবা মারা যান। তারপর থেকেই ওই নাবালিকার মা তুলসী মন্ডল মেয়ের বিয়ে দেওয়ার জন্য উঠেপড়ে লাগেন। পুলিশ সূত্রের খবর ষষ্ঠ শ্রেণীর ওই ছাত্রী প্রথমে বিয়ের জন্য রাজি না হলেও মায়ের জোরজবরদস্তিতে বাধ্য হয়ে শুক্রবার বিয়ের জন্য দাদুর বাড়ি ছামুয়া গ্রামে যাচ্ছিলেন। 
নবগ্রাম থানার এক আধিকারিক জানান, তাঁরা 'চাইল্ড লাইন' থেকে পাওয়া একটি ফোনের সূত্রে জানতে পেরেছিলেন তুলসী মন্ডল তার মেয়ের বিয়ে গরজোড়া গ্রামের জনৈক কৃষ্ণ মন্ডল এর সাথে ঠিক করেছেন। আজ দুপুরে নিজের কয়েকজন আত্মীয়কে নিয়ে একটি অটো ভাড়া করে তুলসী মন্ডল নিজের বাবার বাড়িতে মেয়েকে নিয়ে  যাচ্ছিলেন। সেই সময় চাইল্ড লাইন থেকে খবর পেয়ে পুলিশ অটোটিকে আটকায় এবং তাতে সওয়ার সমস্ত যাত্রীদের থানাতে নিয়ে আসে। 
ওই নাবালিকার মা তুলসী মন্ডল বলেন, ‘‌আমি জানতাম না ১৮ বছরের আগে মেয়ের বিয়ে দেওয়া যাবে না। কিন্তু আমার স্বামীর মৃত্যুর পর আমি মেয়ের পড়াশোনা চালাতে, বই খাতা কিনতে খুব অসুবিধার মধ্যে পড়েছি। স্বামীর মৃত্যুর পর সরকার থেকে এখনও আমি কোনও সাহায্য পাইনি। তাই একপ্রকার অসহায় হয়ে আমি মেয়ের বিয়ে দিতে নিয়ে যাচ্ছিলাম।’‌ 
যদিও থানায় আসার পর তুলসী মন্ডল পুলিশকে লিখিত মুচলেকা দিয়ে জানিয়েছেন মেয়ের ১৮ বছর বয়স না হলে তিনি মেয়ের বিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করবেন না। নবগ্রাম থানার এক আধিকারিক জানান, ‘‌আমরা মেয়েটির পড়াশোনার যাবতীয় দায়ভার নিচ্ছি এবং ওই মেয়েটির মা যাতে সরকারি যাবতীয় সাহায্য এবং বিধবা ভাতা পান সেই বিষয়টি নিশ্চিত করবার জন্য আমরা প্রশাসনের আধিকারিকদের সাথে কথা বলবো।’‌

জনপ্রিয়

Back To Top