Murshidabad: পুজো মণ্ডপে বচসা থেকে ধাক্কাধাক্কি, মৃত্যু এক মহিলার

আজকাল ওয়েবডেস্ক: দুর্গাপুজোর অষ্টমী সকালে অঞ্জলি দেওয়াকে কেন্দ্র করে বচসা আর তারপরই শুরু হল মারপিট।

এই ঘটনায় মৃত্যু হল এক মহিলার। মর্মান্তিক এই ঘটনাটি ঘটেছে সোমবার সকালে মুর্শিদাবাদ থানার কাটিগঙ্গা রেল ব্রিজের পাশে সন্ন্যাসীডাঙা এলাকাতে। মৃত মহিলার নাম সুচিত্রা মণ্ডল (৪০)। এই ঘটনায় পুলিশ ইতিমধ্যে ছয়জনকে আটক করেছে। 

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, সন্যাসীডাঙার একটি বারোয়ারি পুজো মণ্ডপে কারা চাঁদা দেবে এই নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে এলাকাবাসীর মধ্যে গণ্ডগোল চলছিল। সোমবার সকালে সুমিত্রা মণ্ডল দুর্গাপুজোর অষ্টমীর অঞ্জলি দিতে গেলে স্থানীয় কিছু পুরুষ ও মহিলার সাথে তাঁর কথা কাটাকাটি বেঁধে যায়। স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে যাঁরা সুচিত্রার সাথে কথা কাটাকাটিতে জড়িয়ে পড়েছিলেন তাঁরা কেউই এবছর ওই ক্লাবের পুজোর জন্য চাঁদা দিতে রাজি ছিলেন না। 

পুজো কমিটির কয়েকজন সদস্য নাম না প্রকাশের শর্তে বলেন- সুচিত্রা ওই মহিলা এবং যুবকদেরকে প্যান্ডেলে দেখতে পেয়ে পুজোর চাঁদা দেওয়ার না দেওয়ার কারণ জানতে চান। তখনই তাঁদের মধ্যে বচসা শুরু হয়ে যায়। সূত্রের খবর সেই সময়ে কয়েকজন মহিলা এবং পুরুষ তাঁকে ধাক্কাধাক্কি করতে থাকেন। এই সময় অসাবধানতাবশত সুচিত্রা মন্দিরের চাতালে পড়ে গিয়ে মাথায় গুরুতর আঘাত পান এবং সংজ্ঞাহীন হয়ে পড়েন। দ্রুত তাঁকে লালবাগ মহাকুমা হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে চিকিৎসকরা সেখানে তাঁকে মৃত বলে ঘোষণা করেন। 

মৃতার এক আত্মীয় রাসমণি মণ্ডল অভিযোগ করেন, 'ওই এলাকার বাসিন্দা সান্ত্বনা মণ্ডল, চায়না মণ্ডল, বিশ্বজিৎ মণ্ডল , বালক মণ্ডল, সূর্য মণ্ডল সহ আরও অনেক ব্যক্তি এবছর পূজোতে চাঁদা দেননি। তাঁরাই আজ আমার জাকে মণ্ডপে দেখতে পেয়ে হঠাৎ করেই বচসা শুরু করে দেন। আমার জা প্রতিবাদ করাতে তাঁকে ধাক্কা মেরে ফেলে দিলে তাঁর মৃত্যু হয়।' 

মুর্শিদাবাদ থানার এক শীর্ষ আধিকারিক জানান- 'ইতিমধ্যে আমরা এই ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে ছয় ব্যক্তিকে আটক করেছি। অভিযুক্ত আরও কয়েকজনের সন্ধানে পুলিশ তল্লাশি চালাচ্ছে।' 

আকর্ষণীয় খবর