আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ বাড়ির ভিতর থেকে এক শিক্ষক, তাঁর সন্তানসম্ভবা স্ত্রী ও ছেলের ক্ষত বিক্ষত দেহ উদ্ধারের ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়াল মুর্শিদাবাদের জিয়াগঞ্জে। মঙ্গলবার সকালে খবর পেয়েই ঘটনাস্থল থেকে দেহগুলি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তে পাঠিয়েছে জিয়াগঞ্জ থানার পুলিশ। ঘটনাস্থল থেকে মিলেছে একটি ধারালো অস্ত্র। কী কারণে এই খুন, তা নিয়ে ধন্দে পুলিশ।
সাগরদিঘির বাসিন্দা হলেও প্রায় পাঁচ বছর ধরে জিয়াগঞ্জের লেবুতলায় থাকতেন পেশায় শিক্ষক বন্ধুপ্রকাশ পাল। স্ত্রী বিউটি মণ্ডল পাল ও বছর আটেকের ছেলে বন্ধুঅঙ্গন পালকে নিয়ে ওই বাড়িতে বাস করতেন। মঙ্গলবার সকালে বাজারে গিয়েছিলেন পেশায় শিক্ষক প্রকাশ বাবু। ১০ টা নাগাদ ফেরেন তিনি। তার ঠিক ২০ মিনিটের মধ্যে তাঁদের বাড়ি থেকে আর্ত চিৎকার শোনা যায়। যা শুনেই ওই বাড়িতে ছুটে যান প্রতিবেশীরা। অভিযোগ, তাঁরা ঘটনাস্থলে যেতেই এক যুবককে সেখান থেকে পালিয়ে যেতে দেখেন স্থানীয়রা। এরপরই তাঁরা ঘরে ঢুকে দেখেন বিছানার উপর পড়ে রয়েছে প্রকাশ বাবুর দেহ। ঘরের মেঝেতে মেলে তাঁর সন্তানের দেহ। পাশের ঘর থেকে উদ্ধার হয় তাঁর স্ত্রীর দেহ।
খবর পেয়ে জিয়াগঞ্জ থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে হাজির হয়। দেহগুলি ময়নাতদন্তে পাঠানো হয়েছে। ঘর থেকে মিলেছে একটি ধারালো অস্ত্র। কিন্তু কেন খুন করা হল এই তিনজনকে? ইতিমধ্যেই তদন্তের স্বার্থে এলাকার বাসিন্দাদের জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করেছে জিয়াগঞ্জ থানার পুলিশ। 

জনপ্রিয়

Back To Top