অনুপম বন্দ্যোপাধ্যায়, সিউড়ি: স্ত্রীকে খুন করে সাধুর ছদ্মবেশে ভিনরাজ্যে লুকিয়ে ছিল স্বামী। কিন্তু শেষরক্ষা হল না। অবশেষে ধরা পড়ে গেল সিআইডির জালে। সিআইডির একটি দল বৃহস্পতিবার মধ্যপ্রদেশের ভোপাল থেকে ৩ কিলোমিটার দূরে একটি গ্রামের আশ্রম থেকে বলরাম চ্যাটার্জি নামের ওই সাধুবেশী স্বামীকে গ্রেপ্তার করে। রবিবার তাকে সিউড়ির বিশেষ আদালতে তোলা হয় । বিচারক জামিনের আবেদন খারিজ করে ধৃতকে ৭ দিনের পুলিস হেফাজতে পাঠান।আদালত ও পুলিসসূত্রে জানা যায়, বছর সাড়ে চার আগে সাঁইথিয়ার রথতলাপাড়ার মণি সরকারের সঙ্গে বিয়ে হয় পশ্চিম বর্ধমানের ফরিদপুর থানার গৌড় বাজারের বলরাম চ্যাটার্জির। এটি ছিল মণির দ্বিতীয় বিয়ে । প্রথম স্বামী উজ্জ্বল ২০১১ সালে হৃদরোগে মারা যান । সাঁইথিয়া কলেজে একইসঙ্গে পড়াশোনার সূত্রে বলরাম ছিলেন উজ্জ্বলের বন্ধু । সেই সূত্রেই মণিদের বাড়িতে যাওয়া–আসা ছিল বলরামের।  উজ্জ্বলের মৃত্যুর বছর দেড়েক পর বলরামের সঙ্গে মণির দ্বিতীয় বিয়ে হয়। মণির বাবা অবসরপ্রাপ্ত সরকারি কর্মচারি বিবেকানন্দবাবু বলেন, ‘‌বলরামের তেমন কোনও আয় ছিল না। সে ঘরজামাই হয়ে আমার বাড়িতেই থাকত। আমিও টাকা দিয়ে সাহায্য করতাম। মণির আগের পক্ষের এক ছেলে ও এক মেয়েকে আমার কাছে রেখেই পড়াশোনা করাচ্ছি। বলরাম চাইছিল ব্যাঙ্ক থেকে গচ্ছিত টাকা তুলে ব্যবসা করতে। আমার মেয়ে তাতে রাজি হয়নি। এছাড়াও ছোটোখাটো নানা ব্যাপারে বিয়ের কিছুদিন পর থেকেই মণির সঙ্গে বলরামের অশান্তি লেগেই থাকত। মণির ওপর বলরাম শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন চালাত। অশান্তি চরমে উঠলে বছর তিনেক আগে মণিকে নৃশংসভাবে কুপিয়ে খুন করে পালায় বলরাম। তারপর বললামের আর কোনও খোঁজ পাওয়া যাচ্ছিল না।’‌

জনপ্রিয়

Back To Top