আজকালের প্রতিবেদন: ত্যাগের উৎসব মহরমে নজির গড়লেন চার বন্ধু। শাহিদ শেখ, সারাফত শেখ, আবদুল্লা শেখ ও ইবাদত শেখ পূর্ব বর্ধমানের নাদনঘাটের সমুদ্রগড় ডাঙাপাড়ার ৪ যুবক মঙ্গলবার রক্তদান করে মহরম উৎসব পালন করলেন। এমন সিদ্ধান্তকে সাধুবাদ জানাচ্ছেন এলাকার বাসিন্দারা। এলাকার বাসিন্দা কালো শেখ, আরতি খানরা বলছিলেন, ‘টিভি খুললে বা খবরের কাগজে চোখ রাখলে শুধু রক্ত ঝরানোর খবরই দেখি, তার উল্টোপিঠে দাঁড়িয়ে রক্তদান করে মহরম উৎসবটারই কৌলিন্য বাড়ালেন শাহিদ–সারাফত। দৃষ্টান্তও সৃষ্টি করলেন।’ উল্লেখ্য, মঙ্গলবার দক্ষিণবঙ্গের প্রতিটি জেলাতেই মহরম পালিত হয়। এদিন মহরম উপলক্ষে তাজিয়া, আখড়া ও ঢাল নিয়ে আলাদা আলাদা শোভাযাত্রায় শহর পূর্ব বর্ধমানের বিসি রোডে মানুষের ঢল নামে। এখানকার রানিগঞ্জ মোড়ের কাছে ঐতিহাসিক কালাপাহাড়ির মাজারে চাদর চড়ান মন্ত্রী স্বপন দেবনাথ। নাদনঘাটের মতো প্রায় একই ঘটনার ঘটেছে মুর্শিদাবাদেও। সেখানে ধর্ম নয়, মানব ধর্মকে প্রাধান্য দিলেন এক যুবক। যখন মহরমের অনুষ্ঠানে যোগ দেওয়ার কথা, তখন মহরমের অনুষ্ঠানে না গিয়ে অসুস্থ এক রোগীকে রক্ত দিয়ে প্রাণ বঁাচালেন তিনি। একজন অসুস্থ থ্যালাসেমিয়া রোগীর পাশে দঁাড়ালেন মহম্মদ তৌফিক হোসেন (২৫) নামে এক যুবক। মঙ্গলবার মহরমের দিনেই বেলডাঙার অসুস্থ মহিলা সেরিনা বিবিকে মুর্শিদাবাদ মেডিক্যাল কলেজে গিয়ে রক্ত দিয়ে নজির গড়েন তিনি। এদিন মহরম উপলক্ষে পুরুলিয়ায় সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির নিদর্শন রেখে লাঠি খেলায় অংশ নেন জেলা পরিষদের সভাধিপতি সুজয় ব্যানার্জি। এ ছাড়া মহরম উপলক্ষে তাজিয়া নিয়ে শোভাযাত্রা বের হয় পশ্চিম মেদিনীপুরেও।

প্রতীকী ছবি।

 

ছবি: প্রতীকী

জনপ্রিয়

Back To Top