আজকাল ওয়েবডেস্ক: স্থানীয় এক তৃণমূল নেতার উস্কানিতেই কি বনগাঁর কবাডি খেলোয়াড় এবং তাঁর মায়ের ওপর হামলা? অভিযোগ উঠেছে, এলাকায় দীর্ঘদিন ধরেই ওই নেতার বিরুদ্ধে জোরজুলুমের অভিযোগ থাকলেও ভয়ে তাঁর বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ দায়ের করেন না কেউ। বিবাহ-বহির্ভূত সম্পর্কের অভিযোগে বনগাঁর বাবুপাড়ায় এক কলেজছাত্রীর মাকে বাড়ি ঢুকে মারধর করা হয়। নিগৃহীত হয় কবাডি খেলোয়াড় ছাত্রীটিও। মা-মেয়ের পরনের কাপড় ছিঁড়ে দেওয়া হয়, কেটে নেওয়া হয় চুল। ভিডিও তুলে তা ভাইরালও করে দেওয়া হয়। ভাঙচুর করা হয় ঘরের আসবাবপত্র। 
প্রকাশ্য দিবালোকে এই ঘটনা ঘটলেও স্থানীয়রা কেউ বাঁচাতে এগিয়ে যায়নি বলেই জানা গেছে। গোটা ঘটনাটি ঘটিয়ে ‘বীরদর্পে’ বেরিয়ে যায় হামলাকারীরা। অভিযোগ, যাওয়ার আগে তারা মা এবং মেয়েকে হুমকি দিয়ে যায়, পুলিশে অভিযোগ করলে অ্যাসিড দিয়ে পুড়িয়ে দেওয়া হবে। 
ঘটনার ভিডিও ভাইরাল হতেই নড়েচড়ে বসে পুলিশ। পরিবারটির সঙ্গে যোগাযোগ করা হয় এবং শেষপর্যন্ত নিগৃহীত পরিবারটির তরফে পুলিশের কাছে অভিযোগ দায়ের করা হয়। গ্রেপ্তার হয় হামলাকারীদের একজন। বনগাঁ পুলিশ জেলার সুপারিনটেনডেন্ট তরুণ হালদার Aajkaal.com-কে জানিয়েছেন, যার নেতৃত্বে এই হামলা চালানো হয়েছে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। পুলিশের একটি সূত্র জানিয়েছে, যাকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে তার স্বামীর সাথে কবাডি খেলোয়াড়ের মায়ের সম্পর্ক ছিল এই অভিযোগ তুলে হামলা করা হয়। এ বিষয়ে স্থানীয় তৃণমূল নেত্রী মৌসুমী চক্রবর্তী বলেন, ‘আমাদের কোনও কর্মী বা নেতা এই ঘটনার সঙ্গে যুক্ত নয়। ঘটনার পর ওই পরিবারটির পাশে আমরাই গিয়ে দাঁড়াই এবং পুলিশকে বলেছি ঘটনার যথোপযুক্ত তদন্ত করে অপরাধীদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নিতে।’
 

জনপ্রিয়

Back To Top