বুদ্ধদেব দাস, কেশিয়াড়ি, ১৫ এপ্রিল- যারা দ্বন্দ্ব চায়, বিভেদ চায়, যারা ধমের্র নামে রাজনীতি করতে চায়, তাদের পাল্লায় পড়বেন না। ভোটারদের এবিষয়ে সজাগ ও সচেতন থাকার পরামর্শ দিলেন মেদিনীপুরের তৃণমূল প্রার্থী মানস ভুইঁয়া। 
রবিবার কেশিয়াড়ির মন্দিরে মন্দিরে পুজো দিয়ে ভোট–প্রচার সেরেছিলেন বিজেপি প্রার্থী দিলীপ ঘোষ। সোমবার সেখানেই গরম উপেক্ষা করে ভোট প্রচার সারলেন মানস। এদিন তিনি কেশিয়াড়ির ঘৃতগ্রাম, কুসুমপুর, সাঁতরাপুরে প্রচার ও কর্মিসভা করেন। সঙ্গে ছিলেন তৃণমূল নেতা বিকাশ ভুইঁয়া, নির্মল ঘোষ, জগদীশ দাস, ফটিক পাহাড়ী, ব্লক সভাপতি পবিত্র শিট। 
পঞ্চায়েত ভোটে কেশিয়াড়িতে ভাল ফল করেছিল বিজেপি। সে কারণেই মানসকে শোনা যায়, ‘‌কোনও নেতার আচরণে আপনাদের ক্ষোভ, দুঃখ, অভিমান থাকতে পারে। আমিও ভুল করতে পারি। আমাকে শাস্তি দেবেন কিন্তু দল তো ভুল করেনি।’‌ তিনি মনে করিয়ে দেন, ‘‌মমতা ব্যানার্জির পথ থেকে সরে যাবেন না। যিনি জন্ম থেকে মৃত্যু পর্যন্ত ৫২টি প্রকল্প রাজ্যের মানুষের প্রতিটি ঘরে পৌঁছে দিয়েছেন। দেশের এই সঙ্কটে তঁাকে প্রধানমন্ত্রী দেখতে চাইলে মেদিনীপুর আসনটিও জিততে হবে।’‌
কর্মী–সমর্থকদের সতর্ক করে মানস বলেন, ‘‌আমাদের কিছু ত্রুটির জন্য যে ফাঁক–ফোঁকর থেকে গেছে সেখান দিয়ে বিজেপি ঢুকে পড়েছে। তাদের বার করতে হবে। কেশিয়াড়ি থেকে দ্বিগুণ লিড দিয়ে তা প্রমাণ করে দিন। এই বিধানসভা তৃণমূল জিতলে এখানে উন্নয়নও দ্বিগুণ হবে।’‌ মানসের কথায়, ‘‌মমতা লড়ছেন উন্নয়ন ও গণতন্ত্র বাঁচাও, জীবন–জীবিকা বাঁচাও, কর্মসংস্থান বাঁচাও–এসবের জন্য। আর বিজেপি বলছে তুমি হিন্দু না মুসলিম? তুমি রাম না রহিম? তুমি মন্দিরে যাও না মসজিদে? এখানেই তৃণমূলের সঙ্গে তফাত বিজেপি–র।’‌ 

মানসের প্রণাম। কেশিয়ারিতে। ছবি: স্বরূপ মণ্ডল

জনপ্রিয়

Back To Top