দীপঙ্কর নন্দী: করোনা–‌পরিস্থিতির মধ্যেই মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি দুটি জেলার প্রশাসনিক বৈঠক করবেন। ১০ জুলাই, শুক্রবার উত্তর ২৪ পরগনার এবং ১৩ জুলাই, সোমবার দক্ষিণ ২৪ পরগনা জেলার প্রশাসনিক বৈঠক হবে। ১০ জুলাইয়ের বৈঠক হবে নিউ টাউনে বিশ্ব বাংলা কনভেনশন সেন্টারে এবং ১৩ জুলাইয়ের বৈঠকটি হবে নেতাজি ইনডোর স্টেডিয়ামে। পঞ্চায়েত প্রধান, সভাপতি ও গ্রাম–‌পঞ্চায়েতের সদস্যদের এই বৈঠকে ডাকা হচ্ছে। জনপ্রতিনিধিদের ডাকা হবে কি না, এখনও ঠিক হয়নি। জেলার প্রশাসনিক কর্তারা উপস্থিত থাকবেন। আমফানের ত্রাণ নিয়ে ওই দুই জেলা থেকে দুর্নীতির অভিযোগ এসেছে। বৈঠকে এ–‌সব নিয়ে আলোচনা হবে। ইতিমধ্যে তৃণমূল থেকে দুর্নীতির অভিযোগে অনেককে শো–‌কজ করা হয়েছে। যঁারা ত্রাণের টাকা বেআইনি ভাবে নিয়েছেন, তঁাদের মধ্যে অনেকেই টাকা ফেরত দিচ্ছেন। মুখ্যমন্ত্রী ইতিমধ্যে বলেছেন, কোনও অবস্থাতেই দুর্নীতি বরদাস্ত করা হবে না। ঘূর্ণিঝড়ে বিধ্বস্ত উত্তর ২৪ পরগনায় পুনর্নির্মাণের কাজ কীভাবে হচ্ছে, তা নিয়েও আলোচনা হবে। উপস্থিত থাকবেন জেলাশাসক, জেলার পুলিশ সুপার–সহ অন্য আধিকারিকেরা।
দক্ষিণ ২৪ পরগনার সুন্দরবনে এই ঝড়ে ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। প্রচুর বাড়িঘর ভেঙে গিয়েছে। গাছ উপড়ে গিয়েছে। বঁাধ ভেঙেছে। ঝড়ের পরই মুখ্যমন্ত্রীর নির্দেশে খুব দ্রুত পুনর্নির্মাণের কাজ শুরু হয়ে যায়। জেলাশাসক, পুলিশ সুপারের সঙ্গে মুখ্যমন্ত্রী ভিডিও কনফারেন্সে কথাও বলেন। রায়দিঘি, ক্যানিং, কুলতলিতে আমফান–ত্রাণ নিয়ে দুর্নীতির অভিযোগ এসেছে বেশি। দুটি জেলার করোনা–পরিস্থিতি নিয়েও বৈঠকে আলোচনা হবে। দক্ষিণ ২৪ পরগনার তুলনায় উত্তর ২৪ পরগনায় করোনা–‌আক্রান্তের সংখ্যা বেশি। দুই জেলার মন্ত্রীদের প্রশাসনিক বৈঠকে থাকতে বলা হবে।

জনপ্রিয়

Back To Top