যজ্ঞেশ্বর জানা,বাজকুল: উত্তরপ্রদেশের বুলন্দশহরের পুলিস ইনস্পেক্টর সুবোধকুমার সিংয়ের মৃত্যু নিয়ে আবার মুখর হয়ে উঠলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জিও। বাজকুলের জনসভায় তিনি তীব্র নিন্দা করেন হিন্দুত্ববাদীদের।
উল্লেখ্য, উত্তরপ্রদেশের দাদরিতে গোমাংস–গুজব ছড়িয়ে মহম্মদ আখলাককে পিটিয়ে মারার ঘটনায় প্রধান তদন্তকারী অফিসার ছিলেন বুলন্দশহরের পুলিস ইনস্পেক্টর সুবোধকুমার সিং। অভিযুক্তদের একে একে তিনি যেমন গ্রেপ্তার করেছেন, তেমনই তিনি নিজেও ওই মামলার অন্যতম সাক্ষী হয়েছিলেন। তাই তঁার প্রাণ যাওয়া কোনও কাকতালীয় ঘটনা নয় বলে সংশয় প্রকাশ করেছিলেন স্ত্রী সুনীতা এবং ছেলে অভিষেক। পুলিস বাহিনীতে সুবোধকুমার ছিলেন অন্যতম ধর্মনিরপেক্ষ মুখ। যে কারণে কট্টর হিন্দুত্ববাদীদের রাগ ছিল চরম। তিনি তাদের নিশানায় ছিলেন। ঘটনায় অভিযুক্ত উত্তরপ্রদেশের দাদরির জেলা বজরং দলের আহ্বায়ক যোগেশ রাজ। নাম জড়িয়েছে বিজেপি যুব মোর্চারও। সুবোধ যে গোরক্ষকদের তাণ্ডবের বলি, বুধবার সে কথাই স্পষ্ট বলেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি।
বুধবার পূর্ব মেদিনীপুরের বাজকুলের সরকারি জনসভায় বিজেপি–র বিরুদ্ধে সাম্প্রদায়িকতার অভিযোগ তুলে মুখ্যমন্ত্রী বললেন, ‘‌যে পুলিস একটা কেসের তদন্ত করছে, তাকে পর্যন্ত খুন করে দিয়েছে। এরা কী চায়?‌ উত্তরপ্রদেশের বুলন্দশহরে পুলিস অফিসারকে খুন করেছে। নিজেদের আমলে একটার পর একটা ফেক এনকাউন্টার করে এরা খুন করে চলেছে। দিল্লিতে ক্ষমতায় আছে। বড় বড় কথা বলে, আর বড় বড় ভাষণ দেয়। এরাই এক–একজন সবচেয়ে বড় ডাকাত সর্দার।’‌‌‌‌‌
তিনি সরাসরি আক্রমণ করলেন বিজেপি–কে। বললেন, ‘‌যারা হিন্দু–হিন্দু করে মিথ্যা কথা বলে, তারা হিন্দুধর্মের কতটুকু জানে? বিজেপি কবে জন্মেছে? খবর রাখে, জন্মেছে কবে? হঠাৎ এখন মিথ্যে কথা বলতে শুরু করে দিল? এক পয়সার হরিদাস। খেতে পেত না। আজ কোটি কোটি টাকা দিয়ে লোককে ভয় দেখাচ্ছ!‌ রাবণ যাত্রা করে বেড়াচ্ছ!’‌ এভাবে বিজেপি মানুষের জাতপাত তুলে সাম্প্রদায়িক বিভাজনের চেষ্টা করছে বলেও তিনি অভিযোগ করেন। প্রশ্ন তোলেন, ‘‌১২ হাজার কৃষক আপনাদের রাজ্যে আত্মহত্যা করেন কেন? কেন কৃষকদের খেতে দেন না? কেন মায়েদের সম্মান দেন না? কেন বোনেদের সম্মান দেন না? আমরা ৩৪ বছর অনেক আন্দোলন করেছি। অনেক আন্দোলন করে সিপিএম–কে তাড়িয়েছি। আজ যে সিপিএম বিজেপি–তে গিয়ে ঢুকেছে, রাজনৈতিকভাবে বলে দিই, আগামী দিন রাজনৈতিকভাবে তোমাদের প্রত্যেককে তাড়াব আমরা। কারণ, হার্মাদদের জন্ম আমরা আর বাংলায় হতে দেব না।’‌‌‌‌‌‌

জনপ্রিয়

Back To Top