আজকাল ওয়েবডেস্ক: নদীর ভাঙনের জন্য মালদার একটা দুর্নাম আছে। এই ভাঙনে জমি, বাড়ি হারিয়ে ঘরছাড়া হয়েছেন অনেক বাসিন্দা। সোমবার আরেক নতুন ভাঙনের সাক্ষী থাকল মালদাবাসী। বিজেপির স্রোতের ধাক্কায় এদিন হুড়মুড়িয়ে ভেঙে পড়ল এই জেলার জেলা পরিষদে তৃণমূলের ঘর। বিজেপিতে যোগদান করলেন জেলা পরিষদের সভাধিপতি গৌরচন্দ্র মন্ডল। তাঁকে সামনে রেখেই গেরুয়া জার্সি গায়ে তুললেন আরও ১৩ জন সদস্য। আর এই যোগদানের পর বিজেপি নেতা শুভেন্দু অধিকারী বলেন, এই জেলা পরিষদের ৩৮ জন সদস্যের মধ্যে আগেই তাঁদের ৯ জন সদস্য ছিলেন। সোমবার এই ১৪ জন সদস্যের যোগদানের পর এই সংখ্যাটা হল ২৩। শুভেন্দুর দাবি, এঁরা সকলেই পঞ্চায়েত আইন মেনেই যোগদান করেছেন। ফলে জেলা পরিষদ এখন কার্যত বিজেপির। সূত্রের খবর, শুভেন্দু ঘনিষ্ঠ গৌর বিধানসভা নির্বাচনে টিকিট না পেয়েই দল ছেড়েছেন। সঙ্গী হয়েছেন অন্য সদস্যরা। গোটা ঘটনায় সোমবার জরুরি বৈঠক ডাকেন  মালদার তৃণমূল নেতারা। ছিলেন মালদা জেলার তৃণমূল সভাপতি মৌসম নূর, প্রাক্তন মন্ত্রী কৃষ্ণেন্দু নারায়ণ চৌধুরী–সহ অন্যরা। সূত্রের খবর, বৈঠক চলাকালীন তর্কাতর্কির জেরে বেরিয়ে যান এক সদস্য। বৈঠকে উঠে আসা সিদ্ধান্ত নিয়ে কৃষ্ণেন্দু জানিয়েছেন, মোটেই ১৪ জন জাননি। দলের সিদ্ধান্ত, যারা গেছেন তাঁদেরকে পদ থেকে সরিয়ে দেওয়া ছাড়াও দল থেকে 'সাসপেন্ড' করা হবে। দলে থাকলে আগামীদিনে এঁরা দলের ক্ষতি করতেন। ফলে ভালোই হয়েছে। ভবিষ্যতে জেলা পরিষদে অনাস্থা এলে কীভাবে সামাল দেওয়া হবে সে প্রসঙ্গে কৃষ্ণেন্দু বলেন, এখনতো আনতে পারবে না। যখন আনবে তখন দেখা যাবে।
 

জনপ্রিয়

Back To Top