Kolkata: কাঁচা মৌরিতে মেশানো ইন্ডাস্ট্রিয়াল রং! পর্দাফাস করল এনফোর্সমেন্ট ব্রাঞ্চ

আজকাল ওয়েবডেস্ক: বিয়ে বাড়ি হোক কিংবা বাড়িতে জমিয়ে খাওয়া দাওয়া, শেষে একটু মৌরি না খেলে ঠিক মুখের স্বাদ আসে না। আবার অনেকের হজম হয় না ঠিকভাবে। বলা হয়, কাঁচা মৌরির গুণাগুণ অনেক। বাজারে 'ফ্যামিলি ব্র্যান্ড' নামে একটি কোম্পানির প্রস্তুত করা মৌরি পাওয়া যায়। যা কাঁচা মৌরি হিসেবেই বিক্রি হয়। তবে এই মৌরি কাঁচা নয়! মেশানো থাকে সবুজ 'স্নোসেম কালার'। ভেবে হয়তো অবাক হচ্ছেন। কিন্তু কলকাতার বড়বাজারের পোস্তা মার্কেটে এমনই 'ভুয়ো' মৌরি ধরা পড়ল পুলিশের হাতে।

বেশ কিছুদিন ধরেই এই মৌরির বিষয়ে খবর লাগাচ্ছিল কলকাতা পুলিশের এনফোর্সমেন্ট ব্রাঞ্চ। সেখানের মৌরি সংগ্রহ করে পরীক্ষার জন্য পরীক্ষাগারেও পাঠানো হয়েছিল। পরীক্ষার রিপোর্ট এবং অনেক খোঁজ খবর নেওয়ার পর শনিবার এনফোর্সমেন্ট ব্রাঞ্চের আধিকারিক, যুগলকিশোর দাঁ দলবল নিয়ে ৪৫বি, কালীকৃষ্ণ টেগোর লেনে 'মা কামাক্ষ্যা এন্টারপ্রাইজ' নামে একটি দোকানে হানা দেয়। সেখান থেকে গোয়েন্দারা প্রায় দেড়শো কেজি সবুজ মৌরি উদ্ধার করেন।  

আরও পড়ুন:‌ ‘লোকসভা ভোটে বাংলায় বিজেপি ৩, তৃণমূল ৩৯ সিট পাবে’, ভাইরাল সৌমিত্র খাঁ-র অডিও ক্লিপ

এনফোর্সমেন্ট ব্রাঞ্চের আধিকারিক যুগলকিশোরবাবু জানিয়েছেন, পরীক্ষায় জানা গেছে এই মৌরিতে ইন্ডাস্ট্রিয়াল রং ব্যবহার করা হয়, যা স্বাস্থ্যের পক্ষে ক্ষতিকর। খাদ্যে ভেজাল ও অপরাধ চক্র চালানোর জন্য দোকানের মালিক অরুণকুমার গুপ্তা এবং আরও কয়েকজনকে গ্রেপ্তার করা হয়। 

বিশেষজ্ঞদের মতে, 'কলকাতার বড়বাজার খাদ্যে ভেজালে প্রায় শীর্ষস্থানে রয়েছে। যেহেতু ঘিঞ্জি বাজার, তাই পুলিশের খোঁজ চালাতে সমস্যা হয়। আর এরই সুবিধা নেয় অসাধু ব্যবসায়ীরা। তবে কলকাতা পুলিশের এনফোর্সমেন্ট ব্রাঞ্চ সক্রিয় হওয়ায়, একে একে খুলছে অপরাধ চক্রের পর্দা।

আকর্ষণীয় খবর