গৌতম চক্রবর্তী: সোনারপুরে সুগম পার্কে‌র বাসিন্দা অভিষেক মুখার্জি রিয়েল এস্টেটের ব্যবসা ছাড়াও ঋণ পাইয়ে দেওয়ার ক্ষেত্রে মধ্যস্থতার কাজ করেন। মোটা অঙ্কের ঋণ নেওয়ার জন্য আলোচনা কর‌তে বৃহস্পতিবার দুপুরে অভিষেককে ধর্মতলার পিয়ারলেস ইন হোটেলে ডাকা হয়। সেখানে দু’‌জন বাউন্সার নিয়ে অভিষেক বল্লভ নামে এক ব্যক্তি সংবাদমাধ্যমের কর্ণধার পরিচয়ে উপস্থিত হন। আলোচনার নামে গোল বাঁধিয়ে প্রোমোটারকে হোটেলের বাইরে নিয়ে ‌এসে তারা ক্যামেরা, বুম নিয়ে সংবাদ সম্প্রচারের নাটক করে। পরে ‘‌প্রেস’‌ লেখা গাড়িতে করে মুখ ও চোখ বেঁধে নিয়ে যায় ডানকুনিতে। শুক্রবার ওই প্রোমোটারের মা মানসীদেবীর কাছে ৭০ লক্ষ টাকা মুক্তিপণ চাওয়া হয়। তিনি ১০ লক্ষ টাকা দিতে পারবেন বলে জানান। সোনারপুর থানার আধিকারিক সঞ্জীব চক্রবর্তীর নেতৃত্বে তদন্তে নামে পুলিশ। শনিবার বরানগরের একটি জায়গায় অপহরণকারীরা ব্যবসায়ীকে অটো করে নিয়ে আসতেই পুলিশের জালে ধরা পড়ে তারা। উদ্ধার হন অপহৃত প্রোমোটার। গ্রেপ্তার করা হয় প্রিয়াংশু পোল্লে ও জগন্নাথ গুপ্তাকে। ঘটনার সঙ্গে জড়িত পুরুষোত্তম বর্মা, অভিষেক বল্লভ, পার্থ, বিশ্বজিৎ এবং অমিত ও রাজেশ নামে ২ বাউন্সারকে খুঁজছে পুলিশ।‌

ছবি প্রতীকী।

জনপ্রিয়

Back To Top