উদয় বসু: বাড়ির কাছ থেকে অপহরণ করার পর কামারহাটির এক স্কুলছাত্রীর ওপর চালানো হল অমানবিক নির্যাতন। তার পর তাকে শ্বাসরোধ করে খুন করার পর রেললাইনের পাশে ফেলে দিয়ে পালায় দুষ্কৃতীরা। পুলিশ দুষ্কৃতীদের খুঁজছে। ঘটনায় ক্ষোভে ফুঁসছেন কামারহাটি এলাকার বাসিন্দারা। অবিলম্বে দুষ্কৃতীদের গ্রেপ্তার করে চরম শাস্তির দাবি জানিয়েছেন তাঁরা। কামারহাটি পুরসভার ২ নম্বর ওয়ার্ডের ১৩ নম্বর গলিতে থাকত মৃত ঋতিকা রজক (‌১৫)‌। ওরা দুই বোন। ঋতিকা ছোট। দশম শ্রেণির ছাত্রী। পুলিশ তদন্তে নেমে জানতে পারে, পাশে ঠাকুরমার বাড়ি যাচ্ছে বলে বৃহস্পতিবার দুপুরে ঋতিকা বাড়ি থেকে বের হয়। অনেকক্ষণ বাড়ি না ফেরায় ঠাকুরমার বাড়িতে খোঁজ নেওয়া হয়। জানা যায়, সেখানে সে যায়নি। আতঙ্কিত বাড়ির লোকজন বিভিন্ন জায়গায় খোঁজ করতে থাকেন। শেষে কোনও সন্ধান না পেয়ে তাঁরা বেলঘরিয়া থানায় মিসিং ডায়েরি করেন। এদিন রাতেই ঋতিকার দেহ রেললাইনের ধারে পড়ে থাকতে দেখা যায়। মৃতের বাড়ির লোকেরা খুনের অভিযোগ এনেছেন। এদিকে, এটা খুন না প্রেমঘটিত কারণে আত্মহত্যা, তাও তদন্তের মধ্যে রেখেছে পুলিশ। আবার প্রেমঘটিত কারণে ঋতিকাকে ট্রেনের সামনে ফেলে হত্যা করা হয়েছে কিনা তাও খতিয়ে দেখছে পুলিশ।

ঋতিকা রজক‌

জনপ্রিয়

Back To Top