তুফান মণ্ডল, খানাকুল: সামনেই পুরসভা নির্বাচন। আর তার আগে খানাকুলে সাংগঠনিক ধাক্কা খেল বিজেপি। বুধবার খানাকুলের একঝাঁক বিজেপি নেতা তৃণমূলে যোগ দিলেন। তাঁদের সঙ্গে প্রায় পাঁচ শতাধিক কর্মী–সমর্থকও তৃণমূলে যোগ দিয়েছেন। 
তৃণমূলের হুগলি জেলা পর্যবেক্ষক তথা পুর ও নগরোন্নয়নমন্ত্রী ফিরহাদ হাকিমের হাত ধরে কলকাতায় তাঁরা তৃণমূলে যোগ দেন। মন্ত্রী ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন তৃণমূলের হুগলি জেলা সভাপতি দিলীপ যাদব, খানাকুল–১ নম্বর ব্লক তৃণমূল সভাপতি অভিজিৎ বাগ, পঞ্চায়েত প্রধান সন্দীপ বর, শেখ হায়দার, আবদুল আজিজ খান প্রমুখ। এদিন যাঁরা বিজেপি ছেড়ে তৃণমূলে যোগদান করলেন, তাঁদের মধ্যে উল্লেখযোগ্য হলেন নঈমুল হক ওরফে রাঙা। তিনি খানাকুল–১ নম্বর পঞ্চায়েত সমিতির সহ–সভাপতি। তিনি এলাকায় ভাল সংগঠক হিসেবে পরিচিত। গত লোকসভা নির্বাচনে আরামবাগ কেন্দ্র থেকে তৃণমূল প্রার্থী অপরূপা পোদ্দার ১১৪২ ভোটে জয়লাভ করেছিলেন। অথচ এই খানাকুল–১ নম্বর ব্লক থেকেই তৃণমূল বিজেপির থেকে ১৭৫০০ ভোটে এগিয়ে ছিল। আর এর বেশিরভাগ কৃতিত্বই ছিল নঈমুল হকের। কিন্তু দলের কিছু নেতার সঙ্গে ভুল বোঝাবুঝির জেরে লোকসভা নির্বাচনের ফলাফল ঘোষণার কিছুদিন পর তিনি দিল্লিতে গিয়ে বিজেপিতে যোগ দেন। যদিও বিজেপিতে যাওয়ার পর থেকেই তিনি একেবারে নিষ্ক্রিয় হয়ে পড়েছিলেন। বিজেপির কর্মসূচিতেও তাঁকে তেমন একটা দেখা যাচ্ছিল না। 
বেশ কিছুদিন ধরে তিনি তৃণমূলে ফেরার ইচ্ছা প্রকাশ করছিলেন। এর পরে এদিন তিনি ফের তৃণমূলে ফিরে এলেন। তৃণমূলে ফিরে আসার পর নঈমুল হক বলেন, ‘‌আজ ভীষণ হালকা লাগছে। ঘরের ছেলে ঘরে ফিরে এলাম। আমি খানাকুলের ছেলে, খানাকুলের মাটিতে কাজ করতে চাই। খানাকুলের তৃণমূল কর্মী–সমর্থকরা আবার আমাকে কাছে টেনে নেবে। আমার বিশ্বাস আছে। আমি তঁাদের সঙ্গে একযোগে কাজ করতে চাই। আর দলে আমাকে যে দায়িত্ব দেওয়া হবে, সেই দায়িত্বই পালন করব।’‌ 
এদিন তৃণমূলে যোগ দেন আর এক স্থানীয় নেতা পিন্টু চোংদার। তাঁর বাড়ি খানাকুলের পিলখাঁ এলাকায়। তিনিও তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে চলে গিয়েছিলেন। এলাকায় যুব সংগঠক হিসেবে তিনি পরিচিত। এছাড়াও খানাকুল–১ নম্বর অঞ্চলের পঞ্চায়েত সদস্য বাদশা শা বিজেপি ছেড়ে পুনরায় তৃণমূলে ফিরে আসেন। পাশাপাশি বিজেপির দুই নেতা রামকৃষ্ণ মাইতি ও অখিল জানা বিজেপি ছেড়ে তৃণমূলে যোগদান করলেন। এই দু‌জনই বিজেপির সম্পাদক পদে ছিলেন। তাঁরা তৃণমূলে চলে আসায় বিজেপি বড় ধাক্কা খেল বলে মনে করছে রাজনৈতিক মহল। এই ঘটনায় খানাকুলের তৃণমূল নেতারা উচ্ছ্বসিত।  ছবি:‌ বিজয় সেনগুপ্ত

জনপ্রিয়

Back To Top