অনুপম বন্দ্যোপাধ্যায়, সিউড়ি, ২০ জানুয়ারি - রাজ্যের প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলিতে বাধ্যতামূলকভাবে একটি ৪০ মিনিটের খেলাধুলোর ক্লাসে খুদে পড়ুয়াদের দেশীয় ঐতিহ্যের চিরাচরিত খেলাধুলো করানো হবে। মিড–ডে মিলের আগে দুপুর ১.১০ মিনিট থেকে ১.‌৫০ মিনিট পর্যন্ত চলবে এই খেলাধুলোর ক্লাস। সোমবার সিউড়িতে এ কথা জানালেন রাজ্য প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদের সভাপতি মানিক ভট্টাচার্য। 
বাধ্যতামূলক ওই খেলাধুলোর ক্লাস কীভাবে করানো হবে, এ নিয়ে সোমবার সিউড়িতে বীরভূম জেলার ৩২টি সার্কেলের ৫ জন করে শিক্ষক প্রতিনিধি নিয়ে জেলা স্তরের একটি কর্মশালার আয়োজন করা হয়। ৩ দিন ধরে চলবে এই কর্মশালা। রাজ্য প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদের সভাপতি মানিক ভট্টাচার্য সোমবার ৩ দিনের এই কর্মশালার উদ্বোধন করেন। বিশ্বভারতী বিশ্ববিদ্যালয় ও জেলার বিভিন্ন হাই স্কুলের শারীরিক শিক্ষা বিভাগের বিশিষ্ট অধ্যাপক ও শিক্ষকরা এই কর্মশালায় প্রাথমিক শিক্ষকদের প্রশিক্ষণ দেবেন।
শিক্ষা পর্ষদের সভাপতি জানান, রীতিমতো শিক্ষক সমাবেশ ঘটিয়ে এরকম বড়সড় কর্মশালার আয়োজন সারা রাজ্যে এই প্রথম। বীরভূম অবশ্যই এ ব্যাপারে পথ দেখাচ্ছে। এ জন্য  বীরভূম জেলা প্রাথমিক বিদ্যালয় সংসদের চেয়ারম্যান প্রলয় নায়েককে তিনি ধন্যবাদ জানান। প্রসঙ্গত, সম্প্রতি রাজ্য প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদের পক্ষ থেকে প্রাথমিকে খুদে পড়ুয়াদের মধ্যে চু–কিতকিত, লাফদড়ি, কানামাছি, পিট্টু, লুকোচুরি, চোর–পুলিশ, রুমাল চুরি, কুমিরডাঙা, মোরগ লড়াই প্রভৃতি হারিয়ে–যেতে–বসা দেশীয় ঐতিহ্যের ঘরোয়া খেলাধুলো ফিরিয়ে নিয়ে আসার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। ইতিমধ্যেই এ নিয়ে সরকারিভাবে নির্দেশিকাও জারি হয়েছে।

সিউড়িতে কর্মশালার উদ্বোধনে প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদের সভাপতি মানিক ভট্টাচার্য। ছবি: শান্তনু দাস

জনপ্রিয়

Back To Top