মিল্টন সেন,হুগলি: তৃণমূল নেতা খুনের ঘটনায় চাঞ্চল্য কাটোয়ায়। ঠিক কী কারণে খুন তা জানতে তদন্তে নেমেছে কালনা থানার পুলিস। বাইক চালিয়ে বাড়ি ফেরার পথে গুলিবিদ্ধ হন ইনসান মল্লিক(৪৫)। তিনি কালনা ১নম্বর পঞ্চায়েত সমিতির কৃষি কর্মাধ্যক্ষ।গুলিবিদ্ধ অবস্থায় কোলকাতা নিয়ে যাওয়ার পথে অবস্থা অবনতি হয়। তখন তাঁকে নিয়ে যাওয়া হয় পান্ডুয়া গ্রামীন হাসপাতালে। সেখানেই মৃত্যু হয় তাঁর।ঘটনাটি ঘটেছে শুক্রবার রাত পৌনে দশটা নাগাদ, কালনা থানার অন্তর্গত বেগপুরের নারায়ণপুর গ্রামে।দলীয় কার্যালয় থেকে বাইক চালিয়ে বাড়ি ফিরছিলেন ইনসান বাবু। নারায়ণপুর গ্রামে তাঁকে লক্ষ করে পর পর গুলি চালাতে থাকে দুষ্কৃতীরা। দুটি গুলি লাগে তাঁর শরীরে। একটি গুলি লাগে পেটে, দ্বিতীয় গুলি লাগে তাঁর কুচকিতে। রক্তাক্ত অবস্থায় রাস্তায় লুটিয়ে পড়েন তিনি। গুলির শব্দ বেরিয়ে আসেন গ্রামের বাসিন্দারা। স্থানীয়দের তৎপরতায় গুরুতর আহত ইনসানকে প্রথমে কালনা সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে পরীক্ষা নিরীক্ষার পর চিকিৎসক তাঁকে কলকাতা স্থানান্তর করার নির্দেশ দেন।সেখান থেকে তাঁকে কলকাতার হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার সময় তাঁর শারীরিক অবস্থার অবনতি হয়। তখন তাঁকে হুগলির পান্ডুয়া গ্রামীন হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানেই মৃত্যু হয় তাঁর। ঠিক কি কারণে, কে বা কারা তৃণমূল কংগ্রেসের দাপুটে এই নেতাকে খুন করল তা ক্ষতিয়ে দেখছে কালনা পুলিশ। জানা গেছে প্রায় মাস আটক আগেও বাড়ি ফেরার পথে তাঁর ওপর আক্রমণ চালানো হয়েছিল। তখনও ঠিক ওই জায়গাতেই রাতে বাড়ি ফেরার দময় গুলি করে খুন করত চেষ্টা করা হয়েছিল তৃণমূল নেতাকে। তখন কোনও ভাবে প্রাণে বেঁচেছিলেন ইনসান।

 

 

পান্ডুয়া হাসপাতালে মৃত তৃণমূলনেতা ইনসান মল্লিক

জনপ্রিয়

Back To Top