পরিবারের ৪ জনকে খুন! কালিয়াচককাণ্ডে ধৃত আসিফের বন্ধুর বাড়ি থেকে উদ্ধার প্রচুর আগ্নেয়াস্ত্র

আজকাল ওয়েবডেস্ক: কালিয়াচক হত্যাকাণ্ডে নতুন মোড়। মূল অভিযুক্তকে জেরা করতেই চমক। ধৃত মহম্মদ আসিফকে জেরা করে বেরিয়ে এল একাধিক অসঙ্গতি। এরই সঙ্গে তার দুই ঘনিষ্ঠ বন্ধুর নাম পায় পুলিশ। একজনের নাম সাবির আলম এবং অন্য জনের নাম মাফুজা আলি। ওই দুজনের বাড়িতে হানা দেয় পুলিশ। তাদের বাড়ি থেকে উদ্ধার হয়েছে ৫টি সেভেন এমএম পিস্তল ও ৮৪ রাউন্ড গুলি ও ১০টি ম্যাগাজিন।

কোথা থেকে এই বিপুল পরিমাণ অস্ত্র-গুলি তারা পেল তা জানার চেষ্টা করছে পুলিশ। পাশাপাশি কেন এইসব মজুত করে রাখা হয়েছিল আর এর সঙ্গে আসিফ কোনওভাবে জড়িত কিনা তাও খতিয়ে দেখা হচ্ছে। 

প্রসঙ্গত, কালিয়াচকের পুরাতন ১৬ মাইল এলাকার বাসিন্দা মহম্মদ আসিফ তার নিজের বাবা-মা বোন এবং ঠাকুমাকে খুন করে জলের ট্যাঙ্কের মধ্যে লুকিয়ে রাখে। অনেকদিন ধরে প্রতিবেশীরা তাদের না দেখায় আসিফকে জিজ্ঞেস করে। তবে আসিফ উত্তর এড়িয়ে যেত বলে অভিযোগ। এমনকী কাউকে বাড়িতেও ঢুকতে দিত না সে। আর তা থেকেই স্থানীয় বাসিন্দাদের সন্দেহ হয়। খবর দেওয়া হয় থানায়। পুলিশ এলে অবশেষে বাড়ির জলের ট্যাঙ্ক থেকে পরিবারের ৪ জনের কঙ্কালসার মৃতদেহ উদ্ধার করে পুলিশ।আসিফকে জেরা করে পুলিশ জানতে পেরেছে তার দাদাকেও খুনের ছক কষেছিল সে। পরিবারের পাঁচ জনকেই জলের সঙ্গে ঘুমের ওষুধ খাইয়ে ছিল আসিফ। জ্ঞান ফিরতেই সেখান থেকে পালিয়ে যান আসিফের দাদা। তবে কী জন্য খুন, এর পেছনে অন্য কোনও ঘটনা রয়েছে কিনা তাও জানতে তদন্ত শুরু করছে পুলিশ।

জানা গিয়েছে, কয়েকবছর আগে নিখোঁজ হয়ে গিয়েছিল আসিফ। বাবার সঙ্গে সেই সময় অপহরণের নাটক করে আড়াই লক্ষ টাকা হাতিয়ে বাড়ি ফেরে আসিফ। অপহরণের নাটকে কার্যকলাপে সঙ্গে ছিল বন্ধুবান্ধবরা। আসিফের বাড়ি থেকে শনিবারই কয়েক লক্ষ টাকা বাজেয়াপ্ত করছে পুলিশ।