আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ তিনি পা বাড়িয়েই ছিলেন। দলের বিরুদ্ধে ক্ষোভও উগরে দিচ্ছিলেন। প্রশাসনিক পদ ছেড়েছিলেন। তবে কাজ হল না। বিজেপি–র একাংশের আপত্তিতে আর যোগদান করা হল না জিতেন্দ্র তিওয়ারির। এখন তাই তৃণমূলেই জায়গাটা পাকা করতে চান। সেজন্য আজ ঘুরে গেলেন তোপসিয়ার তৃণমূল ভবনে। 
খবর, আজ তৃণমূল নেতৃত্বের সঙ্গে কথা বলতেই এসেছিলেন পাণ্ডবেশ্বরের জিতেন্দ্র তিওয়ারি। এদিন তৃণমূল ভবনে বৈঠক করার কথা মমতা ব্যানার্জির। দেলর এক নেতার কথায়, জিতেন্দ্র চেয়েছিলেন সেই বৈঠকের ফাঁকেই মমতার সঙ্গে একবার কথা বলা। নয়তো অন্য কোনও শীর্ষনেতার সঙ্গে কথা। আসলে তিনি দলে ফের নিজের জায়গা তৈরি করতে চাইছেন। কিন্তু কিছুই হয়নি। 
এদিক ওদিক ঘোরাঘুরি করে ফিরে যান জিতেন্দ্র। এক নেতাকে জানান, ফের আসবেন তিনি। যদিও সংবাদ মাধ্যমের সামনে ঘাবড়ে না গিয়ে বলেন, ‘‌এটা তো আমার দলের অফিসর। আমি আসতেই পারি।’‌
আসানসোলের পুর প্রশাসকের পদ থেকে ইস্তফা দেন জিতেন্দ্র। দলের রাজ্যনেতৃত্বকে চিঠি লিখে তৃণমূল ছাড়ার কথাও ঘোষণা করেছিলেন। তখনই তাঁর বিজেপি–তে আসা নিয়ে আপত্তি তোলেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী বাবুল সুপ্রিয়। এর পর একে একে সরব হন বিজেপি–র রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ, সায়ন্তন বসু, অগ্নিমিত্রা পাল। দিলীপ ছাড়া সকলকে শোকজ করেও ক্ষোভ থামানো যায়নি। 
অগত্যা তাই বিজেপি–তে জিতেন্দ্র যোগদান বিশ বাঁও জলে। এদিকে তৃণমূলেও কোণঠাসা তিনি। ভোটের আগে তাই গুরুত্ব ফিরে পেতে মরিয়া জিতেন্দ্র। সে কারণেই ঢুঁ দিয়ে গেলেন তৃণমূলের সদর দপ্তরে। 

জনপ্রিয়

Back To Top