উদয় বসু: জগদ্দল আর্যসমাজ মোড়ে সকালের ব্যস্ত সময়ে তৃণমূল নেতাকে লক্ষ্য করে চলল পরপর দুটি গুলি। গুরুতর জখম অবস্থায় জগদ্দল ১৩ নম্বর ওয়ার্ডের তৃণমূল নেতা ধর্মেন্দ্র সিংকে (‌৪৫)‌ প্রথমে ভাটপাড়া স্টেট জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখান থেকে কলকাতার এক বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তাঁর অবস্থা আশঙ্কাজনক। ঘটনার পিছনে জড়িত বিজেপি, অভিযোগ করেছে তৃণমূল।
বুধবার সকাল সাড়ে ১০টা নাগাদ নিজের বাইক নিয়ে আর্যসমাজ মোড়ে দাঁড়িয়েছিলেন ধর্মেন্দ্র। সে সময় বাইকে চেপে ২ দুষ্কৃতী সেখানে এসে পেছন থেকে ধর্মেন্দ্রকে লক্ষ্য করে পরপর দুটি গুলি চালায়। একটি গুলি তাঁর মাথার পেছনে লাগে। রক্তাক্ত অবস্থায় রাস্তায় লুটিয়ে পড়লে দুষ্কৃতীরা পালিয়ে যায়। আশপাশের লোকজন ছুটে এসে ধর্মেন্দ্রকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার ব্যবস্থা করেন। ঘটনার পর থেকে আতঙ্কে সিঁটিয়ে রয়েছেন ধর্মেন্দ্রর স্ত্রী, ছেলেমেয়ে ও পরিবারের লোকজন। তাঁদের অভিযোগ, সম্প্রতি বিজেপি ছেড়ে তৃণমূলে যোগ দিয়েছেন ধর্মেন্দ্র। এর জন্যই বিজেপি–র লোকজন তাঁকে খুনের চেষ্টা করল। এ ঘটনায় সরাসরি বিজেপি সাংসদ অর্জুন সিংকেই দায়ী করেছেন খাদ্যমন্ত্রী ও তৃণমূলের জেলা সভাপতি জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক। তিনি বলেছেন, ‘‌অর্জুন সিং বিহার, উত্তরপ্রদেশ থেকে দুষ্কৃতী এনে ভাটপাড়া, জগদ্দলে জড়ো করছেন। এ ঘটনা তার প্রমাণ।’‌ যদিও এ অভিযোগ পুরোপুরি অস্বীকার করে অর্জুন সিং জানিয়েছেন, ‌তৃণমূলের গোষ্ঠীদ্বন্দ্বের জেরেই এই ঘটনা।‌ এদিকে, পুলিশ ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে। দুষ্কৃতীদের খুঁজতে বিভিন্ন জায়গায় তল্লাশি শুরু হয়েছে।

জনপ্রিয়

Back To Top