মিল্টন সেন: দীর্ঘ ৯ বছর ধরে ক্যানসারে আক্রান্ত চুঁচুড়া জোড়াঘাটের বাসিন্দা অজিত বসু। কুছপরোয়া নেহি ভাবনা নিয়ে ৭৪ বছর বয়সেও দৌড়ে বেড়ান তিনি। রাজ্য সরকারের প্রাক্তন উপসচিব অজিতবাবু মঙ্গলবার বিশ্ব ক্যানসার দিবসে বললেন, ‘‌ক্যানসার হয়েছে জানলে ভেঙে পড়ার কিছু নেই। ক্যানসার মানেই মৃত্যু— এই তথ্য একেবারেই ভুল।’‌ এ কথা বলেই ক্রেতা সুরক্ষা নিয়ে জনসচেতনতায় মন দিলেন হুগলি জেলা ক্রেতা আদালতের প্রাক্তন সদস্য বিচারক।
২০১১ সালে তাঁর মূত্রথলিতে ক্যানসার ধরা পড়ে। কলকাতার এক হাসপাতালে অস্ত্রোপচারের পর চিকিৎসক তাঁকে ১০ বছর সময় দেন। সঙ্গে জানান, আগামী ১০ বছর নিশ্চিন্তে থাকতে পারবেন। কিন্তু তার পর কী হবে তা জানা নেই। কিন্তু তাতে গুরুত্ব দিতে নারাজ অজিতবাবু। অবসরের পরেও  ক্রেতা সুরক্ষা সচেতনতা নিয়ে সবসময় ব্যস্ত থেকেছেন। বিভিন্ন বিষয় নিয়ে সংবাদমাধ্যমের দপ্তরে চিঠিপত্র লেখা তাঁর নেশা। বাংলা এবং ইংরেজি একাধিক সংবাদপত্রে তাঁর লেখা অসংখ্য চিঠি প্রকাশিত হয়েছে। এখনও দিনের বেশিরভাগ সময় সাধারণ মানুষকে তিনি পরামর্শ দেন কোনও সামগ্রী বা পরিষেবা নেওয়ার পর ঠকলে কী করতে হয়, কোথায় যেতে হয় এবং কীভাবে অভিযোগ জানালে ক্ষতিপূরণ মেলে ইত্যাদি।
ক্যানসারের কথা ভেবে কখনওই ক্লান্ত হন না অজিতবাবু। সারা বছর ছুটে বেরিয়ে ক্রেতা সুরক্ষা নিয়ে স্কুল, কলেজ, অন্য প্রতিষ্ঠানে সেমিনার করেন। বিশ্ব ক্যানসার দিবসেও ঘরে বসে ছিলেন না। তাঁর কথায়, ‘‌রোগের থেকে রোগের আতঙ্ক মানুষকে সময়ের আগেই মেরে ফেলে। বর্তমানে অনেকেই অজান্তে শরীরে ক্যানসার বহন করে চলেছেন। জানেন না বলেই তাঁদের স্বাভাবিক জীবনযাপন। তবে ক্যানসার মানেই মৃত্যু নয়। বর্তমানে চিকিৎসা ব্যবস্থা অনেক উন্নত। ক্যানসার হলে ভেঙে না পড়ে স্বাভাবিক জীবনযাপন করা উচিত।’‌
 

জনপ্রিয়

Back To Top