আজকাল ওয়েবডেস্ক: বিহার এবং পশ্চিমবঙ্গ বিধানসভা নির্বাচনের দিকে তাকিয়ে দলের অন্দরে বড় রদবদল ঘটাল বিজেপি। পুরনো নেতাদের ডানা ছেঁটে বিজেপি সভাপতি জগত প্রকাশ নাড্ডা নতুন নেতাদের নিয়ে নতুন দল গঠন করলেন। যেসব নেতাদের ক্ষমতা হ্রাস পেল তাঁরা হলেন রাম মাধব, পি মুরলীধর রাও, অনিল জৈন, সরোজ পান্ডের মতো শীর্ষস্থানীয় নেতারা। তাঁদের বিজেপির সাধারণ সম্পাদকের পদ থেকে সরিয়ে দেওয়া হয়েছে। তার বদলে দলের নতুন সাধারণ সম্পাদক করা হয়েছে সিটি রবি, দুষ্মন্ত কুমার গৌতম, ডি পুরন্দেশ্বরী এবং তরুণ চুঘকে। কর্নাটকের সাংসদ তেজস্বী সূর্যকে যুব মোর্চার সভাপতি করা হয়েছে পুনম মহাজনের জায়গায়। রাজকুমার চাহারকে কিষাণ মোর্চার সভাপতি করা হয়েছে। 
পশ্চিমবঙ্গ বিধানসভা নির্বাচনের কথা মাথায় রেখেই মুকুল রায়ের পদোন্নতি করা হয়েছে দলে। বিজেপির সর্বভারতীয় সহ সভাপতি করা হল তাঁকে। মুকুলের সঙ্গেই অন্য যাঁদেরকে সহ সভাপতি করা হয়েছে, তাঁরা হলেন, রাধামোহন সিং, রেখা বর্মা, অন্নপূর্ণা দেবী, ভারতী শিয়ল, ডিকে অরুণ, এম চুবা আও, এপি আবদুল্লাকুট্টি।
দলীয় মুখপাত্রের সংখ্যা বাড়িয়ে ২৩ করা হয়েছে। সাংসদ অনিল বালুনিকে মুখ্য মুখপাত্র করা হয়েছে। যে নতুন নেতারা দলীয় মুখপাত্রে পদাভিষিক্ত হয়েছেন তাঁরা হলেন রাজীব চন্দ্রশেখর, রাজ্যবর্ধন সিং রাঠোর, সঞ্জু বর্মা, ইকবাল সিং লালপুরা, অপরাজিতা সারঙ্গি, হিনা গাভিট, এম কিকোন, নুপুর শর্মা রাজু বিশ্‌ত এবং কেকে শর্মা। অন্যান্য অনগ্রসর শ্রেণি মোর্চার প্রধান হয়েছেন কে লক্ষ্মণ, সংখ্যালঘু শাখার সভাপতি হয়েছেন জামাল সিদ্দিকি, তফসিলি জাতি মোর্চার সভাপতি করা হয়েছে লাল সিং আর্যকে। ক্ষমতা হ্রাস হলেও নতুনদের অভিনন্দন জানিয়ে টুইট করেছেন দলের এককালের দাপুটে নেতা রাম মাধব।
ছবি:‌ এএনআই  ‌‌

জনপ্রিয়

Back To Top