গিরিশ মজুমদার, শিলিগুড়ি: করোনায় আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু স্কুলশিক্ষক স্বামীর। সেই শোকে দুই কন্যাসন্তানকে নিয়ে রেললাইনে ঝাঁপ দিয়ে আত্মঘাতী হওয়ার চেষ্টা স্ত্রী–‌র। মারাত্মক জখম ওই মহিলার নাম সীমা মাহাতো। জখম তাঁর দুই সন্তানের বয়স ৪ ও ২ বছর। তাদের উত্তরবঙ্গ মেডিক্যালে ভর্তি রাখা হয়েছে। ঘটনার আকস্মিকতায় অবাক এলাকাবাসী। শিলিগুড়িতে এমন ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে। 
জানা গেছে, মৃত ওই শিক্ষকের নাম সঞ্জীব মাহাতো (৩৮)। তিনি খড়িবাড়ির রামজনম প্রাইমারি স্কুলের সহকারী শিক্ষক ছিলেন। স্কুল ছুটির কারণে তিনি বাড়িতেই থাকতেন। শিলিগুড়ি ৪৬ নম্বর ওয়ার্ডের চম্পাসারি এলাকায় বাড়িতে তাঁর ছোট দুই কন্যাসন্তান ছাড়াও রয়েছেন স্ত্রী। ক’‌দিন থেকেই তিনি জ্বর, সর্দি, কাশি–সহ করোনার উপসর্গ নিয়ে ভুগছিলেন। ৩ জুলাই শিলিগুড়ি জেলা হাসপাতালে দেখানোর পর সেখানে তাঁকে ভর্তি রাখা হয়। সোমবার গভীর রাতে তিনি মারা যান। ভেন্টিলেশনে রাখার পরও বাঁচানো যায়নি বলে জানিয়েছেন হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ।
মঙ্গলবার সকালে পরিবারের সদস্যদের কাছে এই মৃত্যুর খবর যায়। ভেঙে পড়ে গোটা পরিবার। স্থানীয়রা জানান, এদিন সকালে মৃত শিক্ষকের স্ত্রী তাঁর দুই কন্যাসন্তানকে নিয়ে বাড়ি থেকে বের হন। অনেকে বাড়ি থেকে না যাওয়ার জন্য বাধা দিয়েছিলেন। কিন্তু শোনেননি। তিনি এনজেপি–তে গিয়ে হাজির হন। সেখানে ফুট ওভারব্রিজ থেকে দুই কন্যাসন্তানকে বুকে জড়িয়ে ঝাঁপ দেন রেললাইনে। স্থানীয়রা ছুটে আসেন সেখানে। ছুটে আসে রেল পুলিশ। তাদের নিয়ে যাওয়া হয় হাসপাতালে। মারাত্মক জখম অবস্থায় তাদের ভর্তি করা হয় মাটিগাড়ার একটি নার্সিংহোমে। শারীরিক অবস্থার অবনতি হওয়ায় প্রত্যেককে উত্তরবঙ্গ মেডিক্যালে রেফার করা হয়েছে।
এ বিষয়ে শিলিগুড়ি মেট্রোপলিটান পুলিশের ডিসিপি (ওয়েস্ট) কুঁয়র ভূষণ সিং জানান, খতিয়ে দেখা হচ্ছে সমস্ত ঘটনা।‌‌

জনপ্রিয়

Back To Top