তুফান মণ্ডল, আরামবাগ: তৃণমূল পঞ্চায়েত প্রধানকে হেনস্থা ও তঁার স্বামীকে মারধরের অভিযোগে আরামবাগ থানার পুলিশ গ্রেপ্তার করল এক বিজেপি কর্মীকে। ধৃতের নাম পলাশ ঘোষ। বাড়ি আরামবাগের গৌপহাটি–‌১ নং গ্রাম পঞ্চায়েতের ডিহিবাগনান গ্রামে। মঙ্গলবার সকালে ওই এলাকা থেকেই পুলিশ তাকে গ্রেপ্তার করে। 
উল্লেখ্য, সোমবার পঞ্চায়েত ভবন চত্বরেই প্রধানের স্বামী প্রশান্ত ঘোষকে মারধরের অভিযোগ ওঠে। স্বামীকে বাঁচাতে গিয়ে হেনস্থার শিকার হন তঁার স্ত্রী তথা প্রধান চন্দনা ঘোষ। প্রশান্তবাবু জানান, তঁার স্ত্রী পঞ্চায়েতে একটি ফাইল নিয়ে যেতে ভুলে গিয়েছিলেন। তাই তিনি বাইকে করে সেই ফাইল নিয়ে পঞ্চায়েত অফিসে গিয়েছিলেন। তখন সেখানে কিছু বিজেপি কর্মী–সমর্থক তঁাকে বাইক থেকে টেনে নামিয়ে ফেলে দেয়। তারপর তঁাকে বুকে, পেটে, মাথায় বেধড়ক মারধর করে। পঞ্চায়েতের কর্মীরা তঁাকে কোনওরকমে পঞ্চায়েতের মধ্যে ঢুকিয়ে দেন। পরে পুলিশ পৌঁছে তাঁকে উদ্ধার করে আরামবাগ মহকুমা হাসপাতালে ভর্তির ব্যবস্থা করে। এই ঘটনায় প্রশান্তবাবুর পক্ষ থেকে আরামবাগ থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয়েছিল। সেই অভিযোগের তদন্তে নেমে পুলিশ গ্রেপ্তার করে বিজেপি কর্মী পলাশ ঘোষকে। যদিও পলাশের দাবি, তিনি পঞ্চায়েতের টেন্ডার দুর্নীতি নিয়ে সরব হওয়ার জন্যই তাঁকে পরিকল্পিতভাবে ফাঁসানো হয়েছে।

জনপ্রিয়

Back To Top