আজকালের প্রতিবেদন: হালিশহরে তৃণমূলের ৮ কাউন্সিলর সম্প্রতি বিজেপি–‌তে যোগ দিয়েছিলেন। দিল্লিতে গিয়ে তাঁরা কৈলাস বিজয়বর্গীয়র হাত থেকে বিজেপি–‌র পতাকাও নেন। কিছু দিন ওই দলে কাটিয়ে ফের তৃণমূলে ফিরে এলেন। ৮ কাউন্সিলরকে মঙ্গলবার বিধানসভার মিডিয়া সেন্টারে নিয়ে এসে তৃণমূলের নেতারা সাংবাদিক বৈঠকও করেন। বৈঠকে ছিলেন ফিরহাদ হাকিম, জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক, সুজিত বসু ও নির্মল ঘোষ।
ফিরহাদ সাংবাদিকদের বলেন, ‘‌৮ কাউন্সিলরই আমাদের জানিয়েছেন, বিজেপি–‌তে গিয়ে তাঁদের দম বন্ধ হয়ে আসছিল। ওখানে কোনও নীতি–আদর্শের বালাই নেই। তাই ওঁরা ফিরতে চেয়েছেন।’‌ এদিন বিধানসভায় এসে ৮ কাউন্সিলর প্রথমে মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জির ঘরে গিয়ে তাঁকে প্রণাম করেন। হালিশহরে ২৩ জন কাউন্সিলরের মধ্যে ৮ জন তৃণমূল ছেড়ে বিজেপি–‌তে চলে যান। ৪ জন তৃণমূলে থেকে যান বলে ফিরহাদ জানিয়েছেন। তিনি বলেন, ‘‌গোটা রাজ্যে বিজেপি সন্ত্রাস করছে। ভাটপাড়ার সন্ত্রাস সবাই দেখেছে। নতুন সাংসদ অর্জুন সিং প্রোমোশনের জন্য এই ধরনের সন্ত্রাস করছেন।’‌ ফিরহাদের দাবি, হালিশহর পুরসভা তাঁদের দখলেই থাকবে।
যে ৮ জন কাউন্সিলর তৃণমূলে ফিরে এসেছেন তাঁরা হলেন, চেয়ারম্যান অংশুমান রায়, ঝুমুর গুপ্ত, পারুল সাধুখাঁ, কল্পনা বিশ্বাস, প্রণব লৌহ, জিয়াউল হক, রাজু সাহানি ও বন্যা তালুকদার। এঁরা সকলেই এদিন বিধানসভায় আসেন। দলে ফেরার পর তাঁরা ফিরহাদের ঘরে যান। সাংগঠনিক বিষয় নিয়ে আলোচনা করেন। সেই সময় ফিরহাদের ঘরে ছিলেন পঞ্চায়েতমন্ত্রী সুব্রত মুখার্জি। তাঁরা সকলেই সুব্রতকে প্রণাম করেন। খাদ্যমন্ত্রী জ্যোতিপ্রিয় মল্লিকের ঘরে গিয়েও বেশ কিছুক্ষণ আলোচনা করেন তাঁরা। তৃণমূলের নেতারা বলেন, ‘‌বহু জায়গায় ভয় দেখিয়ে তৃণমূলের কাউন্সিলরদের দিল্লিতে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে।’‌ পরোক্ষভাবে তাঁরা বিজেপি নেতা মুকুল রায়কে দোষারোপ করেন। অনেকেই ভুল বুঝতে পেরে দলে ফিরছেন বলে দাবি করেন ফিরহাদ হাকিম। এদিন ব্যারাকপুরের বিজেপি সাংসদ অর্জুন সিং বলেন, ‘‌হালিশহর পুরসভা বিজেপি–‌র দখলেই থাকবে।’‌সেই সময় ফিরহাদের ঘরে ছিলেন পঞ্চায়েতমন্ত্রী সুব্রত মুখার্জি। তাঁরা সকলেই সুব্রতকে প্রণাম করেন। খাদ্যমন্ত্রী জ্যোতিপ্রিয় মল্লিকের ঘরে গিয়েও বেশ কিছুক্ষণ আলোচনা করেন তাঁরা। তৃণমূলের নেতারা বলেন, ‘‌বহু জায়গায় ভয় দেখিয়ে তৃণমূলের কাউন্সিলরদের দিল্লিতে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে।’‌ পরোক্ষভাবে তাঁরা বিজেপি নেতা মুকুল রায়কে দোষারোপ করেন। অনেকেই ভুল বুঝতে পেরে দলে ফিরছেন বলে দাবি করেন ফিরহাদ হাকিম। এদিন ব্যারাকপুরের বিজেপি সাংসদ অর্জুন সিং বলেন, ‘‌হালিশহর পুরসভা বিজেপি–‌র দখলেই থাকবে।’‌

জনপ্রিয়

Back To Top