যজ্ঞেশ্বর জানা,পটাশপুর: তৃণমূলের এক পঞ্চায়েত সমিতির সদস্যার বাড়িতে আগুন ধরিয়ে দেওয়ার অভিযোগ উঠল বিজেপি–র কর্মী–সমর্থকদের বিরুদ্ধে। ঘটনাকে কেন্দ্র করে বৃহস্পতিবার সকাল থেকেই উত্তাল পটাশপুর ২ ব্লকের পিন্ডরুই গ্রাম।
 জানা গেছে, আর্থিক দুর্নীতি এবং স্বজনপোষণের অভিযোগ তুলে এদিন সকালে পটাশপুর ২ পঞ্চায়েত সমিতির সদস্যা পম্পা প্রধানের বাড়িতে জমায়েত হয় স্থানীয় শতাধিক মানুষ। কাটমানি ফেরত ও দুর্নীতির বিরুদ্ধে স্লোগান দিতে থাকে তারা। অশান্তি এড়াতে বিক্ষোভকারীদের সঙ্গে ব্লকে আলোচনায় বসার কথা বলেন পম্পাদেবী। তঁার অভিযোগ, ‘‌এরপরই ওই বিক্ষোভকারীদের একাংশ তাণ্ডব শুরু করে দেয়। তঁার বৃদ্ধা শাশুড়ি প্রাক্তন পঞ্চায়েত সদস্যা মঞ্জু প্রধান বাধা দিতে এলে তঁাকেও ধাক্কা দিয়ে মাটিতে ফেলে দেয় অভিযুক্তরা এবং খড়ের ছাউনি মাটির বাড়িতে আগুন ধরিয়ে দেয়। মুহূর্তের মধ্যেই চারদিকে আগুন ছড়িয়ে পড়ে। আতঙ্কে চিৎকার শুরু করে দেন বাড়ির লোকেরা। খবর পেয়ে দ্রুত ঘটনাস্থলে এসে পৌঁছয় পটাশপুর থানার পুলিশ। স্থানীয়রাই জল ঢেলে আগুন নেভানো শুরু করেন। দীর্ঘক্ষণ চেষ্টা চালিয়ে আগুন নেভান তঁারা। এই ঘটনায় অবশ্য কোনও অভিযোগ জমা পড়েনি বলে জানিয়েছেন পটাশপুর থানার ওসি রাজকুমার দেবনাথ। অভিযোগ পেলেই ঘটনার তদন্ত করা হবে বলে জানিয়েছেন তিনি।
ঘটনায় বিজেপি যোগের কথা অস্বীকার করেছেন দলের কঁাথি সাংগঠনিক জেলার সভাপতি অনুপ চক্রবর্তী। তিনি বলেন, ‘‌কাটমানি ফেরত চাইতে গ্রামবাসীরাই গিয়েছিলেন ওই তৃণমূল পঞ্চায়েত সদস্যার বাড়িতে। গণবিক্ষোভকে বিজেপি–র বিক্ষোভ বলে চালাতে চাইছে তৃণমূল। বাড়িতে আগুন লাগিয়ে দেওয়ার অভিযোগও অসত্য। অপরাধ ঢাকতে িতনি নিজেই বাড়িতে আগুন লাগিয়ে মিথ্যা অভিযোগ তুলছেন।’‌

পুড়ছে তৃণমূল পঞ্চায়েত সমিতির সদস্যার বাড়ি। ছবি:‌ প্রতিবেদক‌

জনপ্রিয়

Back To Top