আজকালের প্রতিবেদন: কন্যাশ্রী দিবসের ষষ্ঠবর্ষপূর্তি উৎসব সাড়ম্বরে পালিত হল দক্ষিণবঙ্গের সব জেলাতেই। এই দিবস উপলক্ষে উত্তর ২৪ পরগনার হাবড়ার একটি অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন খাদ্যমন্ত্রী জ‍্যোতিপ্রিয় মল্লিক। হাবরা ১ নম্বর ব্লকের সেরা কন্যাশ্রী হিসেবে সমাপ্তি মণ্ডলের হাতে আর্থিক পুরুস্কার তুলে দেন তিনি। একই সঙ্গে তিনি হাবড়া বিডিও অফিসের একটি প্রেক্ষাগৃহের উদ্বোধনও করেন। প্রেক্ষাগৃহের নামকরণ করা হয়েছে কন্যাশ্রীর নামে।
অনার্স গ্রাজুয়েট সমাপ্তি মণ্ডল বাবাকে হারিয়েছেন চার বছর আগে। তখন থেকেই দুই বোন সমাপ্তি এবং দীপা  সংসারের দায়িত্ব তুলে নেন নিজেদের হাতে। দুজনই নিজেদের জমিতে চাষ করে সংসার চালান। হাবড়া কুমড়া পঞ্চায়েতের আনখোলা এলাকায় তঁাদের বাড়ি। পরিবারে ছয় বোনের মধ্যে সকলের ছোট সমাপ্তি যখন অষ্টম শ্রেণিতে পড়ে, তখন থেকেই পড়াশোনা করার পাশাপাশি বাবার সঙ্গে চাষের কাজও করতেন। সেই সমাপ্তিকেই এবার পুরস্কৃত করা হয়।
কন্যাশ্রী দিবসে বিশেষ কৃতিত্বের জন্য পূর্ব বর্ধমান জেলার ১৬ জন কন্যাশ্রীকে পুরস্কৃত করা হল। এর মধ্যে ১১ জন বিশেষ কৃতী কন্যাশ্রীকে কলকাতায় রাজ্য পর্যায়ের এক অনুষ্ঠানে পুরস্কৃত করেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি। বাকি ৫ জন কৃতী কন্যাশ্রীকে পূর্ব বর্ধমান জেলার এক অনুষ্ঠানে সংবর্ধিত করলেন মন্ত্রী স্বপন দেবনাথ। এছাড়া আরও কন্যাশ্রীদের বুধবার সংস্কৃতি লোকমঞ্চ সংবর্ধনা দেওয়া হয়েছে। তাদের সংবর্ধিত করে মন্ত্রী স্বপন দেবনাথ ‘জল বঁাচাও, জীবন বঁাচাও’ এবং ‘সবুজ বঁাচাও, জীবন বঁাচাও’ স্লোগানকে সামনে রেখে পথে নামার পরামর্শ দিলেন কন্যাশ্রীদের। এই অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে ছিলেন জেলাশাসক বিজয় ভারতী, সভাধিপতি শম্পা ধারা ও সহ সভাধিপতি দেবু টুডু প্রমুখ।
কন্যাশ্রী দিবসে বীরভূম দেখল এক নতুন উৎসব। জেলা সদর সিউড়িতে জেলাস্তরের এবং রামপুরহাট ও বোলপুরে মহকুমা স্তরের অনুষ্ঠান ছাড়াও বুধবার জেলার প্রতিটি ব্লকে রীতিমতো উৎসবের মেজাজে কন্যাশ্রী দিবস উদযাপন করা হয়। সিউড়ি ডিআরডিসি হলে জেলার মূল অনুষ্ঠানের উদ্বোধক ছিলেন মন্ত্রী আশিস ব্যানার্জি। তিনি বলেন, ‘‌কন্যাশ্রী আমাদের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জির স্বপ্নের প্রকল্প। এই প্রকল্প বিশ্বের দরবারে প্রশংসিত।’‌ অনুষ্ঠানে ছিলেন জেলাশাসক মৌমিতা গোদারা–সহ জেলা প্রশাসনের কর্তারা।
পূর্ব মেদিনীপুর প্রশাসন এবং জেলা পরিষদের যৌথ উদ্যোগে তমলুকের সুবর্ণজয়ন্তী ভবনে বুধবার নানা অনুষ্ঠানের মধ্যে দিয়ে পালিত হল কন্যাশ্রী দিবস। যোগ দিয়েছিল জেলার বিভিন্ন স্কুলের পড়ুয়ারা। উপস্থিত ছিলেন মন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী, জেলা সভাধিপতি দেবব্রত দাস, জেলাশাসক পার্থ ঘোষ প্রমুখ। এদিন বিশেষ কৃতিত্বের জন্য জেলার ৫ কন্যাশ্রীকে পুরস্কৃত করা হয়। এদিন মেদিনীপুরের প্রদ্যোত স্মৃতি ভবনে একটি অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয় নারী ও শিশু বিকাশ সমাজ কল্যাণ দপ্তরের উদ্যোগে। ছিলেন জেলাশাসক রশ্মি কমল, জেলা পুলিশ সুপার দীনেশ কুমার, জেলা পরিষদের সভাধিপতি উত্তরা সিংহ হাজরা এবং অন্যরা। সবং ব্লকেও কন্যাশ্রী দিবস পালিত হয়। ছিলেন সাংসদ মানস ভুঁইয়া, বিধায়ক গীতারানি ভুঁইয়া, বিডিও অভিজিৎ মুখার্জি, পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি হাজরা বিবি, কর্মাধ্যক্ষ আবু কালাম বক্স।

হাবড়া ১ নং ব্লক অফিসে সমাপ্তি মণ্ডলের হাতে আর্থিক সাহায্য তুলে দিচ্ছেন জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক। 

জনপ্রিয়

Back To Top