আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ ভোট–সপ্তমীতেও ইভিএম খারাপের অভিযোগ উঠল। সন্দেশখালি থেকে ভাঙড়, জয়নগর থেকে দমদম। বুথের পর বুথে ভোট যন্ত্র বিকল হওয়ার ঘটনা ঘটেছে। এমনকী তা বদলে ভোট চালু করতেও বেশ কিছু জায়গায় কয়েক ঘণ্টা সময় লেগেছে বলে বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের অভিযোগ। এতে সবচেয়ে বেশি নাজেহাল হতে হচ্ছে সাধারণ ভোটারদের।
কমিশনের বিরুদ্ধেও অভিযোগ তুলছে রাজনৈতিক দলগুলি। তাঁদের বক্তব্য, মেশিন বিকল হতেই পারে। কিন্তু তা বদলাতে কমিশনের এত সময় লাগার কথা নয়। সোনারপুরের একটি বুথে সকাল সাড়ে ১০টা পর্যন্ত ভোট চালু করা যায়নি। ফলে বহু ভোটার দীর্ঘক্ষণ লাইনে দাঁড়িয়ে থাকতে হয়েছে। 
যদিও নির্বাচন কমিশনের দাবি, কিছু ভোটযন্ত্র বিকল হওয়ার ঘটনা ঘটেছে। সঙ্গে সঙ্গে ব্যবস্থা নেওয়াও হয়েছে। নির্বিঘ্নেই চলছে ভোট। ভোটযন্ত্র বিকল হওয়ার ঘটনা নিয়ে সংশ্লিষ্ট ইঞ্জিনিয়ারদের থেকে রিপোর্ট চেয়েছে নির্বাচন কমিশন। সেই রিপোর্ট পাঠানো হবে জাতীয় নির্বাচন কমিশনের কাছে। আর নির্ধারিত সময় পর্যন্ত যাঁরা লাইনে দাঁড়াবেন তাঁদের ই–ভোটগ্রহণ হবে।
সকাল ৯টা পর্যন্ত নির্বাচন কমিশনে ১৪টি অভিযোগ জমা পড়েছে। ভাঙড় থেকে এসেছে চারটে অভিযোগ। ভাঙড়ে বুথে উত্তেজনা দেখা দেয়। ভয়ে ভোট দিতে আসছিলেন না ভোটাররা। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ। ভোটারদের আস্থা বাড়াতে গ্রামে চলে টহলদারি। দমদম লোকসভা কেন্দ্রের অর্ন্তগত খড়দহে ৯১ নং বুথে ইভিএম খারাপ থাকার জন্য প্রায় ১ ঘণ্টা বন্ধ থাকে ভোটগ্রহণ। কোথাও ইভিএম খারাপ তো কোথাও ভিভিপ্যাটের সমস্যা। এমন কোনও লোকসভা কেন্দ্র নেই যেখানে এই ঘটনা ঘটেনি। 

জনপ্রিয়

Back To Top