বুদ্ধদেব দাস, মেদিনীপুর: বাঁধের জলে পড়ে হস্তি শাবকের মৃত্যু হওয়ায় সারাদিন গোয়ালতোড়ের কয়েকটি গ্রামে তাণ্ডব চালালো হাতির দল। দঁাতালদের তাণ্ডবের জেরে আতঙ্কিত হয়ে পড়েন জঙ্গলঘেরা গ্রামের মানুষ। হুলাপার্টি ও বনকর্মীরা হাতির পালকে তাড়ানোর চেষ্টা করে ব্যর্থ হন। বুধবার রাত পর্যন্ত স্থান পরিবর্তন না করে দাপিয়ে বেড়ায় হাতির দল। ক্ষতি করে চাষের ফসল। পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার বন দপ্তরের হুমগড় রেঞ্জের ঘটনা।
বন দপ্তর সূত্রে জানা গেছে, সোমবার গড়বেতার দিক থেকে ৫০টির মতো হাতির একটি দল কালীপুর হয়ে সখিশোলের জঙ্গলে আশ্রয় নেয়। সেই জঙ্গলেই একটি হাতির শাবকের জন্ম হয়। জঙ্গলে হাতি ঢোকার খবরে আশেপাশের এলাকার বাসিন্দারা মঙ্গলবার সকালেই হাতি তাড়াতে শুরু করে। মানুষের তাড়া খেয়ে রীতি ভেঙে সদ্যোজাতকে নিয়ে প্রায় তিন কিলোমিটার পথ পেরিয়ে মা হাতি হদহদির জঙ্গলে চলে আসে। তাদের পাহারা দিয়ে নিয়ে আসে দলের বাকিরা। মঙ্গলবার সারাদিন হদহদির জঙ্গলে থাকার পর রাতের দিকে বাচ্চাটিকে নিয়ে পাশের কদমডাঙার জঙ্গলে চলে আসে মা হাতিটি। জঙ্গলটি বন দপ্তরের হুমগড় রেঞ্জের মধ্যে পড়ে। এই জঙ্গলেই বন দপ্তরের একটি বঁাধ আছে। বুধবার ভোরে ক্লান্ত বাচ্চা হাতিটি জল খেতে সেই বঁাধের জলে নেমেছিল, আর উঠতে পারেনি। মা হাতি তাকে তোলার চেষ্টা করে। নজরদারিতে থাকা বনকর্মীরা গিয়ে দেখতে পান বঁাধের মধ্যে বাচ্চা হাতিটি পড়ে রয়েছে। দুপুর পর্যন্ত বনকর্মীরা বঁাধ থেকে বাচ্চাটিকে তোলার চেষ্টা করেন। কিন্তু দলের বাকি দঁাতালদের বাধায় তাকে তুলতে পারেননি তঁারা। জলে ডুবে শেষ পর্যন্ত শাবকটির মৃত্যু হয়। এর পরই এলাকায় দাপিয়ে বেড়ায় দঁাতালরা। সব লন্ডভন্ড করতে শুরু করে।                      ছবি: স্বরূপ মণ্ডল

জনপ্রিয়

Back To Top