Durga Puja: ভাঙল কুসংস্কার, এই প্রথম দুর্গার মুখ দেখলেন অসুর সম্প্রদায়ের মানুষেরা

আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ এই প্রথম দেবী দুর্গার মুখ দর্শন করলেন ডুয়ার্সের অসুর সম্প্রদায়ের লোকজন। মঙ্গলবার রাতে, সপ্তমীর সন্ধ্যায় এক সেচ্ছাসেবী সংগঠনের চেষ্টায় অসুর সম্প্রদায়ের মানুষেরা তাদের যুগ যুগ ধরে চলে আসা কুসংস্কার ভাঙলেন। দেবী দুর্গার মুখ দর্শন করলেন ডুয়ার্সের ক্যারন চা বাগানের একদল মানুষ। এই মানুষজন নিজেদের বলতেন অসুর সম্প্রদায়। দুর্গাপুজোয় ঘর ছেড়ে বের হতেন না। শোক পালন করতেন। কিন্তু দিন বদলেছে, পরিবারের বাচ্চারা পুজোর সময় ঘরে বন্দি থাকতে চায় না। তাই বাধ্য হয়ে রীতি ভুলে পুজো দেখতে বের হলেন তারা।

 ডুয়ার্সের ক্যারন চা বাগানের ক্যারি লাইনের ৫৫টি অসুর সম্প্রদায়ভুক্ত পরিবার। স্বেচ্ছাসেবী সংস্থার হাত ধরে সপ্তমীর সন্ধ্যায় ৩০ জন ঘুরতে এসেছেন।তাদের প্রথমে আনুষ্ঠানিকভাবে নতুন বস্ত্র তুলে দেওয়া হয়। তারপর টোটোতে করে পুজো মণ্ডপে ঘোরানো হয়। 

ক্যারন চা বাগানের বাসিন্দা মালতি অসুর জানায়, নিয়ম তেমন জানা নেই। তবে পরিবারের পূর্ব পুরুষদের থেকে শোনা দুর্গাপুজোতে বের হতে হয় না। ক্যারন চা বাগানেও পুজো হয়, কিন্তু সেখানেও যাওয়া হয় না। আর এক জন অনিতা অসুর বলেন, পুজোর সময় বের হওয়া হয় না।এটাই রীতি হয়ে আসছে। কিন্তু বর্তমানে বাচ্চারা মানে না,তাই বাধ্য হয়ে কখনও কখনও পুজো দেখতে বের হতে হয়েছে। 
চলতি মাসের ৮ তারিখে ক্যারন চা বাগানে শিশুদের নতুন বস্ত্র দিতে গিয়েছিল ধূপগুড়ির স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন প্রচেষ্টা। সেখানেই অসুর সম্প্রদায়ের মানুষরা নতুন বস্ত্রের কথা মজা করেই জানায়। তখনই ধূপগুড়িতে আসলে নতুন বস্ত্র এবং পুজো মণ্ডপে ঘোরানোর কথা জানানো হয়। সেই মতো অষ্টমীর সন্ধ্যায় ক্যারন চা বাগান থেকে ৩০ জন ধূপগুড়িতে আসে। এদিন তাদের নতুন বস্ত্র যেমন তুলে দেওয়া হয়েছে, তেমনি পুজো মণ্ডপও ঘোরানো হয়। 

এদিনের অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন ধূপগুড়ি পুরসভার ভাইস চেয়ারম্যান রাজেশ সিং, ধূপগুড়ি থানার আইসি সুজয় তুঙ্গা সহ ক্যারন চা বাগানের বাসিন্দারা। অনুষ্ঠানের অতিথিরাই বাসিন্দাদের হাতে নতুন বস্ত্র তুলে দিয়েছে।